• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৫:১৯ অপরাহ্ন

মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকরাই ছিল প্রথম সারির যোদ্ধা—–নাসির হোসেন


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২৫, ২০২২, ৫:৩২ অপরাহ্ন / ১০৮
মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকরাই ছিল প্রথম সারির যোদ্ধা—–নাসির হোসেন

মোঃ রাসেল সরকার,ঢাকাঃ ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকরাই ছিলেন প্রথম সারির মুক্তিযোদ্ধা, জীবন-মৃত্যুর সাথে লড়াই করে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় তুলে ধরে ছিলেন, সাহস যুগিয়ে ছিলেন অস্ত্রধারী রণাঙ্গণের মুক্তিযোদ্ধাদের। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন জাতিসংঘের অধিবেশনে এক ব্রিটিশ নাগরিক এই যুদ্ধকে ভারত-পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ হচ্ছে উল্লেখ করে বক্তব্য দিয়েছিলেন। সেই অধিবেশনেই বাংলাদেশের প্রতিনিধি আবু সাঈদ চৌধুরী তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে ব্রিটিশ নাগরিকের সেই বক্তব্য প্রত্যাহার করতে বলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন ভারত-পাকিস্তান নয়, যুদ্ধ হচ্ছে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের সাথে। যা বিশ্ব মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচারিত হচ্ছে।

এই প্রসঙ্গে তিনি বাংলাদেশের কাদেরিয়া বাহিনীর একটি যুদ্ধকে তুলে ধরেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে টাঙ্গাইলের ভুয়াপুর যমুনা নদীর তীরে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বে কাদেরিয়া বাহিনী দুটি পাকিস্তানি জাহাজ ধ্বংস করেন। যুদ্ধটি ইতিহাসের পাতায় জাহাজ মারা যুদ্ধ নামে পরিচিত। কারণ ধ্বংস প্রাপ্ত জাহাজ দুটির আগুন ৭ দিন পর্যন্ত জ্বলছিলো। যা বিশ্ব মিডিয়ায় বাংলাদেশের তৎকালীন সাংবাদিকরা নিখুতভাবে তুলে ধরেছিলেন। এ কারণেই সাংবাদিকরা প্রথম সারির মুক্তিযোদ্ধা। সত্তুর দশকে বাংলাদেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক মরহুম তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া দৈনিক ইত্তেহাদ পত্রিকায় মুসাফির নামে একটি কলাম লিখতেন যা তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানী শাসকদের শরীরে ভয়ের কাঁপুনি ধরিয়ে দিতো। মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকদের ভূমিকা শীর্ষক স্মৃতিচারণ আলোচনায় গণফোরামের ত্রাণ ও সমাজকল্যান বিষয়ক সম্পাদক মো: নাসির হোসেন এ সব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন স্বাধীনতার একান্ন বছর পেরিয়ে গেলও এই বিজয়ের মাসে দুঃখ ভরাকান্ত মন নিয়ে বলতে হচ্ছে আজও আমরা স্বাধীনতার সেই স্বাদ পাইনি, আমাদের অর্থনৈতিক মুক্তি আসেনি, গণতান্ত্রিক মুক্তি আসে নাই, আমাদের গণতান্ত্রিক মুক্তি, ভোট ও ভাতের অধিকার আদায়ের জন্য সাংবাদিকদেরকেই সবার আগে এগিয়ে আসতে হবে। সাংবাদিক ভাই ও বন্ধুদের মনে রাখতে হবে তাদের কলমের কালি ৩০লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত। অপরাধীকে অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করলেই সমাজ-রাষ্ট্র থেকে অপরাধ নির্মূল হবে। একটি সুন্দর সমৃদ্ধ রাষ্ট্রের প্রত্যাশায় সবাইকে ধন্যবাদ।