• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:২৯ পূর্বাহ্ন

সাত বছরের শিশু গৃহকর্মীকে পুলিশ পরিদর্শক ও তার স্ত্রীর অমানুষিক নির্যাতন : মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটপট করছে হাসপাতালে


প্রকাশের সময় : অগাস্ট ৩১, ২০২১, ২:০২ অপরাহ্ন / ৫১২
সাত বছরের শিশু গৃহকর্মীকে পুলিশ পরিদর্শক ও তার স্ত্রীর অমানুষিক নির্যাতন : মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটপট করছে হাসপাতালে

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ পুলিশ পরিদর্শক আজহার আলী সুমন ও তার স্ত্রী ডেইজি বেগমের অমানুষিক নির্যাতনের শিকার শিশু গৃহকর্মী হাসিনাকে (০৭) লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শিশু গৃহকর্মী হাসিনা বেগম লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার গোড়ল ইউনিয়নের শিবরাম বলাইরহাট এলাকার হতদরিদ্র হাছেন আলীর মেয়ে। সে আদিতমারী উপজেলার সঠিবাড়ি গ্রামে তার নানীর সাথে থাকত।

নির্যাতনের শিকার শিশুর পরিবার ও হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে, এক বছর আগে আদিতমারী উপজেলার তালুক দুলালী গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে পুলিশ পরিদর্শক আজহার আলী সুমন তার ঢাকার বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে হাসিনা বেগমকে নিয়ে যান। তাকে নেয়ার পর থেকে গত এক বছরে পরিবারের সাথে কোন যোগাযোগ করতে দেয়া হয়নি। উল্টো কারনে অকারনে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করা হয় তাকে। এতে শিশু হাসিনা গুরুতর অসুস্থ হলে রোববার(২৯ আগস্ট) অপরিচিত একজন পুলিশ কনস্টবলের মাধ্যমে অসুস্থ শিশু গৃহকর্মী হাসিনাকে তার বাড়িতে পাঠান ওই পুলিশ পরিদর্শক।

বাড়ি পৌছে তার উপর নির্যাতনের লোমহর্ষক বর্ণনা দেয় শিশু হাসিনা। তার সারা শরীরের নির্যাতনের চিহ্ণ রয়েছে। পরিবারের লোকজন অসুস্থ্য শিশু হাসিনাকে রাতেই লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করেন।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (৩১ আগষ্ট) মামলা দায়ের করা হবে বলেও জানান ওই শিশুর পরিবার।

অসুস্থ্য হাসিনা তার সমস্ত শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখিয়ে সাংবাদিকদের বলে, টাঙ্গাইলের ওসি আজহার আলী সুমনের বাসায় কাজ করতাম। সেখানে কারনে অকারনে মারপিট করত, খুব কষ্ট দিতো তারা। বাড়ির কারো সাথে কথাও বলতে দেয়নি। ব্যাথার কারনে শরীরে হাত দিতে পারে না সে। রোববার ওই থানার একজন পুলিশের সাথে বাড়ি পাঠিয়েছেন ওসি আজহার আলী।

লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. গোলাম মোর্শেদ দোলন বলেন, শিশু হাসিনার শরীরে পুরাতন ও নতুন আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে সে আশংকামুক্ত রয়েছে।

আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতনের খবরটি লোকমুখে ও ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। তবে ঘটনাস্থল যেখানে সেখানেই আইনগত ব্যবস্থা নিতে হয়। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার থানায় এলে বিষয়টি পরিস্কার জানা যাবে।

এদিকে শিশু হাসিনাকে তার নিজ বাড়ি বাড়ি
শঠিবাড়ি গ্রামে পৌছে দিতে আসা পুলিশ কনস্টবলকে স্থানীয় লোকজন আটক করলে স্থানীয় ভেলাবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী জিম্মায় নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয় বলে অভিযোগ করেন ওই এলাকার লোকজন।