• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন

সাংবাদিক থেকে জনপ্রতিনিধি, সর্বোচ্চ ভোটে নির্বাচিত আয়শা সিদ্দিকা


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২০, ২০২২, ১২:০২ অপরাহ্ন / ২৪
সাংবাদিক থেকে জনপ্রতিনিধি, সর্বোচ্চ ভোটে নির্বাচিত আয়শা সিদ্দিকা

মাদারীপুর প্রতিনিধি: মাদারীপুর জেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাদারীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী জনাব মুনির চৌধুরী ও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন ইলিয়াস হোসেন। এছাড়াও সাংবাদিক থেকে জনপ্রতিনিধি পদের নির্বাচনে আয়শা সিদ্দিকা সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে নির্বাচিত হন। আয়শা সিদ্দিকা ইতোপূর্বে প্রথম আলো পত্রিকায় শিবচর প্রতিনিধি হিসেবে দীর্ঘ প্রায় ১২ বছর সুনামের সঙ্গে সাংবাদিকতা করেন। এ বছর মাদারীপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে (শিবচর- রাজৈর) ২নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তার মার্কা ফুটবল। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মোসা. সেলিনা বেগম হরিণ মার্কা নিয়ে নির্বাচন করন।

রাজৈর ও শিবচর উপজেলায় সোমবার সকাল ৯টা থেকে ইভিএম মেশিন দ্বারা ভোট গ্রহণ শুরু হয় উৎসবমুখর পরিবেশে। কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা ছাড়াই নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হয়। পুলিশ র্যা ব বিডিআর সাদা পোশাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ভোট কেন্দ্রের ভিতরে ও বাহিরে নজরদারী করে। বেসরকারিভাবে ফলাফল প্রকাশ করা হয় তাতে আয়শা সিদ্দিকা (মুন্নি) ফুটবল মার্কায় সর্বোচ্চ ৩০৫ ভোট পেয়ে মাদারীপুর জেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোসা. সেলিনা বেগম হরিণ মার্কায় ৯৫ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, মাদারীপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে সদর উপজেলার ২ জন কালকিনিতে ২ জন ডাসারে ৪ জন প্রার্থী ও সংরক্ষিত সদস্য পদে (মাদারীপুর সদর -কালকিনি -ডাসার) উপজেলা থেকে ৫ জন এবং রাজৈর-শিবচর উপজেলা থেকে ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে মাদারীপুর সদর উপজেলায় মহিউদ্দিন খান উটপাখি প্রতীকে ১৪৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আবু বক্কর সিদ্দিক তালা প্রতীকে পেয়েছেন ৬১ ভোট।

কালকিনি উপজেলায় রফিকুল ইসলাম তালা প্রতীকে ৭২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আব্দুল আল মামুন অটোরিকশা প্রতীকে পেয়েছেন ৭০ ভোট। ডাঁসার উপজেলায় মীর মামুন ও রশিদ হাতি প্রতীকে ২৫ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আবুল কাশেম হাওলাদার টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ১৭ ভোট। সংরক্ষিত সদস্য পদে মোসা. রোকসানা পারভিন বই প্রতীকে ২০৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সেহেলা ইয়াসমিন টেবিল ঘড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ১৪৩ ভোট।

আয়শা সিদ্দিকা মুন্নি বলেন, এ বিজয় আমার নয়, এটা শিবচরের জনগণের বিজয়। এটা এমপি নূর-ই-আলম চৌধুরীর বিজয়।

মাদারীপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আলাউদ্দিন আল মামুন জানান সোমবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে ৮ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৭ জন প্রার্থী প্রতিযোগিতা করেছেন। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। উচ্চ আদালতের নির্দেশে রাজৈর উপজেলার সদস্য পদে নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। এই উপজেলায় সাধারণ সদস্য পদে ২ জন প্রার্থী ছিলেন।

মাদারীপুর জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী জেলা পরিষদ নির্বাচনে আয়শা সিদ্দিকা প্রাপ্ত ভোটের সর্বোচ্চ এবং সবচেয়ে বেশি ভোটে ব্যবধানে (২১০) নির্বাচিত হওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এমপি নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেন, আয়শা সিদ্দিকাকে শিবচর ও রাজৈরের জনপ্রতিনিধিরা ভোট দিয়ে সবচেয়ে বেশি ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত করেছেন। তাই শিবচর ও রাজৈরের জনপ্রতিনিধি ও দলীয় নেতাকর্মীদের অভিনন্দন জানায়। সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে জেলা পরিষদের নির্বাচিত হওয়ার কারণে আয়শা সিদ্দিকাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তিনি।