মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৬:০৭ অপরাহ্ন
Title :
দুর্নীতির শীর্ষেে থেকে বহাল তবিয়তে প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান শ্যামল বাংলা ফাউন্ডেশনের এাণ বিতরণ সম্পন্ন গোপালগঞ্জে ভাসমান পদ্ধতিতে উৎপাদিত হচ্ছে বিষমুক্ত সবজি কালিয়ায় শারদীয়া দুর্গাপূজা উপলক্ষে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত খুলনা কৈয়া বাজারে ভূমিদস্যুদের দৌরাত্ব বৃদ্ধি জমি জবর দখলে রাতারতি ঘর নির্মাণঃ অদৃশ্য কারণে প্রশাসন নিরব গোদাগাড়ীতে এক মাসের মধ্যেই চালু হচ্ছে নৌ-বন্দরের কাজ ইলিশ আহরণের অবৈধ প্রচেষ্টা সফল হতে দেয়া হবে না —মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী রাতের আধারে খুলনা মোংলা রেলওয়ের প্রকল্পের বালু,রড চুরি বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার তরুণী নড়াইলের কালিয়ার পাখিমাড়া মোড়ে পটকাবাজী বিস্ফোরনে যুবক আহত

রাতের আধারে খুলনা মোংলা রেলওয়ের প্রকল্পের বালু,রড চুরি

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ১২ অক্টোবর, ২০২০
  • ২ Time View

খুলনা অফিসঃ  দীর্ঘ ৩ মাস টানা লকডাউনে থাকাকালীন সময়ে খুলনা মোংলা রেলওয়ে প্রকল্প নির্মান সামগ্রী রাতারাতি চুরির কথিত অভিযোগ উঠে এসেছে সাংবাদিকদের কাছে।

দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় দীর্ঘ তিন মাস লকডাউনে থমকে থাকে দেশ এবং সকল প্রকল্প নির্মানকাজ।
আর এই লকডাউনের মধ্যে করোনার কারনে জায়গায় জায়গায় সাময়ীক সময়ের জন্য স্থগীত করা হয় খুলনা মোংলা রেলওয়ে প্রকল্পের কাজ।

নির্মানধীন রেলওয়ে প্রকল্পে কর্মরত কর্মচারীরা যখন এলাকাভেদে সিকিউরিটি নাইট গার্ড দিয়ে লকডাউনের ছুটিতে চলে যায় আর তখনই শুরু হয় এই প্রকল্পের পাশে বসবাস করা জনসাধারণের অসৎ উদ্দেশ্য। চুরি করে মূল্যবান বালি,রড,লোহার পাত সহ নানা রকম নির্মান সামগ্রী। এমনকি নাইট গার্ডের বিরুদ্ধে গাদা করা নির্মান সামগ্রী গোপনে রাতারাতি বিক্রি করার অভিযোগও পাওয়া যায়।

সরজমিনে গিয়ে এলাকাবাসীকে জিগাসাবাদ করলে তারা নিজেদের নাম পরিচয় গোপন রাখা শর্তে চুরির ঘটনা খুলে বলেন। তবে তারা দাঙ্গাবাজী হামলার ভয়ে অত্নসাৎকারী চোরের নাম বলতে রাজি হননি।

তাদের ভাষ্য মতে দিন গড়িয়ে সন্ধ্যা পেরলে গভীর রাতে বস্তাবন্দি করে চুরি হতো এবং নাইট গার্ডের দ্বারা বিক্রি হতো বালি ও রড সহ দামী দামী নির্মান সামগ্রী।

এর পাশাপাশি এসব ইট,বালু রড চুরি করে নিজেদের বাসস্থান সংস্করণ ও নির্মান করার অভিযোগ ও উঠে এসেছে।

তবে ওই সকল এলাকায় বসবাস করা কিচু ব্যাক্তিবর্গ বলে লকডাউনের আগে যারা প্রকল্পে কাজ করেছিলো তারা লকডাউনের পরে স্থান পরিবর্তনের কারনে হয়তো দায়িত্বরত কনটাক্টর ও লেভারদের চোখে পড়েনি।

সরকারি নির্মান সামগ্রী চুরীর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানায় এালাকাবাসীরা। তাদের দাবী সম্পূর্ণ বিষয়টিকে তদন্ত করলে আরও কিছু তথ্য বেরিয়ে আসবে। এবং এই প্রকল্পের পাশে বসবাসরত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যাবস্থা গ্রহন করা হউক।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 banglahost
Design & Development By: Atozithost
Tuhin