• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৫২ পূর্বাহ্ন

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করলেন সাংবাদিক প্রীতি


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৭, ২০২১, ৫:১১ অপরাহ্ন / ২৯৯
নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করলেন সাংবাদিক প্রীতি

স্টাফ রিপোর্টার : আসন্ন ১৬ই জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ১৬,১৭ ও ১৮ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী সোনিয়া দেওয়ান প্রীতি।

৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জ জজ কোর্টে অবস্থিত জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে তিনি মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেন।

এসময় তার সাথে ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি সাংবাদিক নেতা মো. শফিকুল ইসলাম আরজু, নারায়ণগঞ্জ টপ নিউজ এর প্রকাশক-সম্পাদক মহসিন আলম, সাংবাদিক, সংগঠক ও টিভি অভিনেতা মোখলেছুর রহমান তোতা, নারায়ণগঞ্জ নিউজ ২৪.কম এর প্রকাশক ও সম্পাদক – মো : মনির হোসেন সহ বিভিন্ন মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ।

মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করার পর সোনিয়া দেওয়ান প্রীতি বলেন- ‘‘আসলে আমার নির্বাচন করার কোনো ইচ্ছে ছিল না, শুধুমাত্র আমার এলাকার ময়-মুরব্বি থেকে শুরু করে অসংখ্য অসহায় মানুষ, যাদেরকে আমি বিভিন্ন সময় সাহায্য সহযোগিতা করেছি বিনাস্বার্থে, তাদের ঐকান্তিক ইচ্ছেতে আমি নির্বাচনী মাঠে নেমেছি। সুতরাং এখন আর পেছনে তাকাবার কোনো সুযোগ নেই।’’

প্রীতি আরও বলেন- ‘‘জনগণের ভোটে কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে আমি প্রথমেই অসহায়-দরিদ্র পিতা মাতার কন্যা সন্তানদের বিয়ের খরচ এর জন্য একটি ফান্ড গঠন করব। যে ফান্ডে সারা দেশ ও দেশের বাইরে থেকেও সচ্ছলদের থেকে অর্থ সংগ্রহ করে তা ১৬, ১৭, ও ১৮ নং ওয়ার্ডের সমস্ত দরিদ্র পিতা-মাতার কন্যা সন্তানদের বিয়ের জন্য অনুদান হিসেবে দেয়া হবে বিনা ফটোসেশনে। দরিদ্র পিতার কন্যার বিয়ের জন্য ফটোসেশন করে তার হাতে অর্থ সহায়তা তুলে দিব এমনটা আমি করব না। কেননা আমার কাছে- কারও দারিদ্রতা মানেই আত্মসম্মান বিসর্জন দেয়া নয়। এছাড়া এসব এলাকাগুলোতে মাত্রাতিরিক্ত হারে বেড়ে যাওয়া ‘কিশোর গ্যাং ও ইভটিজিং’ রোধ করা যতই চ্যালেঞ্জিং হোকনা কেনো, নিজের মেধা ও ক্ষমতাকে ব্যবহার করে যুগোপযোগি আধুনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করে এলাকা থেকে এসব নিশ্চিহ্ন করতে কাজ করব। কেননা শুধুমাত্র সরকার থেকে পাওয়া ত্রাণ এনে দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করাই জনপ্রতিনিধির কাজ নয়, এলাকার সকল শ্রেণীর জনগণের জান ও মালের নিরাপত্তা দেয়াও জনপ্রতিনিধির কাজ বলে আমি মনে করি। যেহেতু দীর্ঘ সময় ধরে সাংবাদিকতা ও সমাজ সেবা করার অভিজ্ঞতা আমার রয়েছে, আমি মনে করি এই ওয়ার্ডগুলোর এই সকল সমস্যা সহ নানাবিধ সমস্যার সমাধানে আমার চেয়ে কার্যকর পরিকল্পনা ও তার বাস্তবায়ন অন্য কেউ করতে পারবে না। আর তাই আগামী ১৬ই জানুয়ারি আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে নিজেদের সেবা করার সুযোগ দেয়ার জন্য এলাকাবাসীর প্রতি অনুরোধ জানাই।’’