• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০:৩২ পূর্বাহ্ন

সিদ্ধিরগঞ্জে জমির ছবি তোলায় গণমাধ্যম কর্মীর উপরে হামলা


প্রকাশের সময় : মে ২, ২০২৩, ৫:২৯ অপরাহ্ন / ৪৮
সিদ্ধিরগঞ্জে জমির ছবি তোলায় গণমাধ্যম কর্মীর উপরে হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিদ্ধিরগঞ্জঃ সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন নিমাইকাশারী এলাকায় বিরোধপূর্ণ একটি জমির ছবি তোলায় রসূলবাগ এলাকার নিজাম উদ্দিনের ছেলে মুসা সুমন (৪০) সহ অজ্ঞাত আরো ৩ জন মুক্তিনগর এলাকার মৃত কুতুব উদ্দিন ইসলামের ছেলের উপর হামলা চালিয়েছে। ভুক্তভোগী একজন গণমাধ্যম কর্মী। গত ২৪ এপ্রিল রাতে ডেমরা থানাধীন বক্সনগর এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। পরে ভুক্তভোগী ডেমরা থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এই বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে আদালতে দেওয়ানি মামলা চলমান আছে যাহার নং-৬৮/২৩।

উক্ত অভিযোগ তুলে নিতে ৩০ এপ্রিল সন্ধ্যায় সিদ্ধিরগঞ্জের মাদানীনগর এলাকায় দ্বিতীয় দফায় অভিযোগ তুলে নিতে ভুক্তভোগীর উপর হামলা চালায় অভিযুক্ত মুসা সুমন। এ ঘটনায় পুণরায় থানায় অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী মো.তারেক।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ এপ্রিল বিরোধপূর্ণ জমির ছবি তোলায় অভিযুক্তরা তারেকের উপর প্রথম দফায় হামলা চালিয়ে মারধর করে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে দ্বিতীয় দফায় আবারো হামলার শিকার হন তারেক। অভিযোগ তুলে না নিলে বাদি ও বাদির পরিবারের ক্ষতি সাধন সহ প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করা হয় বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন ভুক্তভোগী তারেক।

সাংবাদিক তারেক বলেন, এই জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলে, উক্ত জমির বিষয়ে গত ২৪ এপ্রিল তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে তারা বাধা প্রদান করে। পরে রাতে আমি ডেমরা থানাধীন বক্সনগর এলাকায় একটি প্রতিষ্ঠানের সামেনে মটরসাইকেলে উপরে বসে ছিলাম, কোন কিছু বুজার উঠার আগে মুসা সুমন আমার উপরে আতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমার শরীলের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নিলা ফুলাসহ মারাত্নক যখম হয়। পরে আমি সুস্থ্য হওয়ার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রথমিক চিকিৎসা নিই। চিসিৎসক আমাকে ৭ দিনের জন্য বেড রেষ্টের জন্য পরামর্শ দেন। আমি ও আমার পরিবার এখন আতঙ্ক আছি, যে কোন সময় সুসা সুমন বাহীনি হামলা করেতে পারে।

এ বিষয়ে মুসা সুমন বলেন,আমার সাথে সাংবাদিক তারেক পূর্বের কোন শত্রুতা নেই। আমি স্বীকার করলাম তার গায়ে তিন চারটা চর ফাপ্পর মারি।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর মো. হাবিবুর রহমান বলেন, উক্ত বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।