• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৩৫ অপরাহ্ন

নরসিংদীতে স্বামীকে না জানিয়ে ভূয়া ঠিকানা ব্যবহার করে সৌদি আরব যাওয়ার চেষ্টা


প্রকাশের সময় : জুলাই ২৮, ২০২২, ১১:১২ অপরাহ্ন / ১০৮
নরসিংদীতে স্বামীকে না জানিয়ে ভূয়া ঠিকানা ব্যবহার করে সৌদি আরব যাওয়ার চেষ্টা

নরসিংদী প্রতিনিধিঃ নরসিংদী ইয়াসমিন আক্তার কল্পনা স্বামীকে না জানিয়ে ভূয়া ঠিকানা ব্যবহার করে পাসপোর্ট তৈরী করে সৌদি আরব যাওয়ার চেষ্টা।

স্বামী আলম খানের অভিযোগ নরসিংদী জেলা কুটির শিল্প, সাটিরপাড়া, নরসিংদী তাত ও বস্ত্র প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, সাহেপ্রতাব, খোঁজ নিয়ে স্ত্রী কল্পনার কোন সন্ধান না পেয়ে । কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, শাষপুর খোঁজ নিয়ে জানতে পারে কল্পনা ৭ ই জুন থেকে ১৬ জুন পর্যন্ত সৌদি আরব যাওয়ার উদ্দেশ্য হাউস কিপিং প্রশিক্ষণ করেছে, তার পাসপোর্ট আবেদনের অনুলিপি, ফিঙ্গার আবেদনের অনুলিপি, জাতীয় পরিচয় পত্রের অনুলিপি সংগ্রহ করে জিজ্ঞেসা করে তুমি আমাকে না জানিয়ে পাসপোর্ট আবেদন করেছ, তখন মোবাইলে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের জন্য গত ৩১মে ৯.৫৩ মেসেজ দেয়, তাতে লেখা তদন্তকারী কর্মকর্তা ৩ ই জুন প্রতিবেদন জমা দেন। স্বামী আলম খান উক্ত নাম্বারে তদন্তকারী কর্মকর্তা কে ফোন দেয়, বলে আপনি আমার স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তার কল্পনা পাসপোর্ট ভেরিফিকেশন করেছেন, আমি স্বামী সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী আমার অঙ্গীকার নামা, নিকাহনামা এমন কি আমার সাথে যোগাযোগ না করে প্রতিবেদন জমা দিলেন কিভাবে? তখন তদন্তকারী কর্মকর্তা বলে আমি রেজিস্ট্রার খাতা দেখে বলবো। কল্পনা স্বামী কে আর ফোন দেয় নাই তদন্তকারী কর্মকর্তা।

গত ৪ ই জুলাই স্বামী উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, রোকসানা বিলকিস কে লিখিত অভিযোগ করে জানায় আমার স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তার কল্পনা, তার বান্ধবী রোজিনা সাথে গিয়ে পাসপোর্ট আবেদন, ফিঙ্গার, হাউস কিপিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এক সাথে ট্রেনিং করে রোজিনা বেগম।
এই লিখিত অভিযোগ পেয়ে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বান্ধবী রোজিনা কে ফোন দিলে, রোজিনা বেগম ও স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তার কল্পনা সাথে নিয়ে উপস্থিত হয়। মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জিজ্ঞেস করে আপনারা পাসপোর্ট করেছেন কার মাধ্যমে তার সঠিক কোন উত্তর দিতে পারে নাই।
গত ৫ জুলাই কল্পনা তার শাশুড়ী ও স্বামীকে না জানিয়ে ভোরে বাসা থেকে কাপড় ব্যাগসহ বেড়িয়ে যায়।
গত ৪ ই জুলাই ইমেইলের মাধ্যমে তার স্বামী আলম খান,পাসপোর্ট আবেদন, স্থায়ী ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা, স্বামীর অঙ্গীকারনামা, নিকাহনামা, তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রতিবেদন দেওয়ার বিষয়টি মহাপরিচালক,
ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর ,ঢাকা, ডিআইজি, ঢাকা রেঞ্জ, বাংলাদেশ পুলিশ, ঢাকা ও নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসবি) কে
জানান।

মেঝ ছেলে বিকালে নানা বাড়িতে গেলে জানতে পারে বাবা আলম খান কে মামলা অথবা তালাক দিয়ে সৌদি আরব যে কোন মূল্যে চলে যাবে মা। পাসপোর্ট আবেদনে সরকারি কর্মকর্তাদের ভুল তথ্য দিয়ে পাসপোর্টের আবেদন করেছে।

বাংলাদেশ সরকারের আইন ও নিয়ম ভঙ্গ করেছে এই সত্য বিষয়টি স্বামী আলম খান জেনে ফেলায় স্ত্রী, তার সাথে কথা বলা বন্ধ করে দেয়। তদন্তকারী কর্মকর্তাদের কারণে রোহিঙ্গারা ও নারী পাচারকারী চক্র বিদেশে গিয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করছে। প্রধানমন্ত্রী,স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, জনশক্তি ও কর্মসংস্থান, ঢাকা দৃষ্টি আকর্ষণ করছি উক্ত, সিন্ডিকেট ধরলে আসল রহস্য বের হয়ে আসবে।

এই ব্যাপারে, জাতীয় পরিবেশ মানবাধিকার সোসাইটি চেয়ারম্যান আতিক আজিজের সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি বলেন, এটা একটি দেশদ্রোহী অপরাধ,মানবাধিকার লঙ্ঘন, ইতিমধ্যে ইয়াছমিন আক্তার কল্পনা করেছে। তার সৌদি আরব ও বিদেশ যাওয়া বন্ধ করতে হবে।

গত ৬/০৭/২০২২ সাদা কাগজে ভুয়া একটি তালাকের কাগজ পাঠায়, যার মধ্য কোন হেড কাজীর সিলমোহর ও স্বাক্ষর নাই। স্বামী আলম খান কাজী অফিসে গিয়ে দেখে হেড কাজী মারা গেছে, ভারপ্রাপ্ত দ্বায়িত্ব পালন করেন মোসলেহ উদ্দিন , জানান, হেড কাজী মারা যাওয়ার কারণে ভলিউম ২০২২ সি ফরম উত্তোলন সম্ভব নয়।

গত ঈদুল আজহা উদযাপন লক্ষে ৬ বছরের শিশু, শিশির মা কে না পেয়ে কান্না করেন। শিশুর কান্না পরিবারের জন্য ঈদ আর হলোনা বাচ্চাদের নিয়ে কোন বাবা যেন এত কষ্ট না পেতে হয়।