• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৯:২৭ পূর্বাহ্ন

ধনাঢ্য স্বামীর মৃত্যু, নিপীড়িত নিঃসন্তান নারীর পাশে পুলিশ


প্রকাশের সময় : জুলাই ১৬, ২০২১, ১০:৩৫ অপরাহ্ন / ১৫৭
ধনাঢ্য স্বামীর মৃত্যু, নিপীড়িত নিঃসন্তান নারীর পাশে পুলিশ

মনিরুজ্জাান অপূর্ব, ঢাকা: স্বামী ধনী ব্যবসায়ী। ঢাকায় বহুতল বাড়ির মালিক। রয়েছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে করোনায় মৃত্যুবরণ করেন। স্বামীর মৃত্যুর পর তার সতীনের সন্তানেরা তাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিচ্ছিল। তার ভরণপোষণের যে ব্যবস্থা তার স্বামী করে গিয়েছিলেন তা থেকেও তাকে বঞ্চিত করা হচ্ছিল। তার ঘরে কোনো সন্তান আসেনি। নিঃসন্তান তিনি। পাশে দাঁড়ানো মতোও তেমন কেউ নেই। নিভৃতে কান্না ছাড়া আর কোনো গত্যন্তর তার ছিল না। তিনি বুঝে গিয়েছিলেন একা কোনো ভাবেই লড়াই করে পেরে উঠবেন না সতীনের সন্তান ও তাদের পক্ষের মানুষদের সাথে। ভেবেছিলেন নিরবেই বেরিয়ে গিয়ে নিজের গ্রামেই আশ্রয় নিবেন। এই পর্যায়ে কোনো এক শুভাকাঙ্খীর পরামর্শে বাংলাদেশ পুলিশের মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইংকে লিখেন তিনি। জানান তার দুঃখ, দুর্দশা ও বঞ্চনার কথা।

মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং তার সব কথা শুনে সিদ্ধান্ত নেয় তার পাশে থাকার। তাকে জানিয়ে দেয় প্রবলভাবে তার পাশে থাকবে। এর পরই, মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং বার্তাটি ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশের শাহবাগ থানার তৎকালীন ওসি মো. মামুনুর রশীদকে পাঠিয়ে নির্দেশনা দেয় ভদ্রমহিলাকে আইনি সহযোগিতা দিতে এবং করনীয় বিষয়ে পরামর্শ দেয়। ওসি শাহবাগ বিষয়টি অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে গ্রহণ করে উভয়পক্ষের সাথে আলোচনা করেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদেরকে সম্পৃক্ত করে তাদেরই মাধ্যমে উভয় পক্ষের সম্মতিতে একটি সুষ্ঠু সমাধানের আয়োজন করে দেন। এর ফলে, ভদ্র মহিলা আইন অনুযায়ী যেটুকু সম্পত্তি ও সুবিধা প্রাপ্য ছিলেন তা স্বল্পতম সময়ে তাকে বুঝিয়ে দেন অপরপক্ষ।

গত ২৩ জুন ২০২১ খ্রি. উভয়পক্ষের মধ্যে একটি চমৎকার বোঝাপড়ার মধ্য দিয়ে সমস্যাটি সমাধান হয়। ভদ্র মহিলার নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে পুলিশ। অপরপক্ষকে জানানো হয়েছে, ভদ্র মহিলার কোনো ক্ষতি হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে কার্পন্য করবে না পুলিশ। ভদ্র মহিলার সাথে যোগাযোগ রেখেছে মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং। সর্বশেষ ১৫ জুলাই ২০২১ খ্রি. ভদ্র মহিলার সাথে যোগাযোগ করে তার খোঁজখবর নেয় মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং। বাংলাদেশ পুলিশের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ভদ্রমহিলা।

উ‌ল্লেখ্য, ভুক্ত‌ভোগীর স‌র্বোচ্চ কল্যাণ ও সুরক্ষা বি‌বেচনায় প্র‌যোজ্য ক্ষে‌ত্রে ঘটনার সা‌থে সং‌শ্লিষ্ট ব্য‌ক্তি ও বিষয়াদির নাম প‌রিচয় প্রকাশ না করার প‌লি‌সি অনুসরন ক‌রে থা‌কে মি‌ডিয়া এন্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স উইং।