• ঢাকা
  • সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০২:৩০ অপরাহ্ন

গোপালগঞ্জ সদর ইউএনও অফিসের নাজিরের বিরুদ্ধে টিসিবি পণ্য বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ


প্রকাশের সময় : মে ৬, ২০২৪, ৭:১৮ অপরাহ্ন / ২৯
গোপালগঞ্জ সদর ইউএনও অফিসের নাজিরের বিরুদ্ধে টিসিবি পণ্য বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোপালগঞ্জঃ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এর কার্যালয়ের নাজির সঞ্চিতা সিকদারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগে জানা যায়, মেসার্স রউফ-হাচিনা ট্রেডার্স এর মালিক আঃ রউফ মোল্লা চলতি বছরের গত ২২ ফেব্রুয়ারী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। টিসিবি’র ডিলারের নিয়ম অনুযায়ী নমিনী প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিয়ে ডিলারের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারবেন।

এ বরাদ্দের কাজ করেন ওই উপজেলা নির্বাহী অফিসের নাজির সঞ্চিতা সিকদার। তিনি তাকে টিসিবি’র বরাদ্দের পণ্য না দিয়ে মোটা অংকের অর্থের বিনিময় অন্য এক প্রভাবশালী ডিলার কায়েস ভূইয়া মারা যাওয়ার পরেও তার একাধিক লাইসেন্সে বেশি বরাদ্দ দিয়েছেন। অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতি করে তিনি প্রয়াত কায়েস ভুঁইয়ার চয়ন-নয়ন স্টোর, দুরুদ স্টোর, জমির স্টোর, অহিদ-নয়ন স্টোর, ভূইয়া স্টোর এ টিসিবির পণ্য বরাদ্দ দেন।

এছাড়াও সঞ্চিতা সিকদার দুর্নীতির মাধ্যমে শহরের জনতা রোডের পাশে জায়গা ক্রয় করে বহুতল ভবন নির্মাণের অভিযোগ রয়েছে। সরকার প্রদত্ত ন্যায্য মূল্যে টিসিবি’র পণ্য বিতরণে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ জানিয়ে হাচিনা বেগম চলতি বছরের গত ২২ এপ্রিল গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। অভিযোগের বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্ত করে দুর্নীতিবাজ ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন বলে অভিযোগকারীর দাবী।

এছাড়াও নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক টিসিবি’র ডিলার জানান, সঞ্চিতা সিকদার উৎকাচ না পেলে তাদেরকে টিসিবি বরাদ্দ থেকে বঞ্চিত করেন। যারা তাকে মোটা অঙ্কের উৎকোচ দেন কেবল সেই সকল ডিলারই বেশি বেশি টিসিবি’র পণ্য বরাদ্দ পান এবং তাদেরকে ডিলারের সুবিধা মতো স্থানে পণ্য বিক্রির অনুমতি দেন। আর যারা তাকে খুশি করতে পারেন না তাদের দুঃখের সীমা থাকে না।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীরা অভিযুক্ত নাজির সঞ্জিতা শিকদারের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বাড়ি আমার না, আমার শ্বশুরের বাড়ি, আমি জানি কে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছে। আগে তদন্ত কমিটি গঠন হোক আমি আমার বক্তব্য সেখানেই দিবো।

এদিকে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের মধ্যে সমাজের হতদরিদ্র ও নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে ন্যায্য মূল্যে টিসিবি’র পণ্য বিক্রির এ কার্যক্রম ইতোমধ্যেই বেশ প্রশংসা অর্জন করেছে। সমাজের স্বল্প আয়ের মানুষের মাঝে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরিয়ে এনেছে। তাই মহৎ এ কর্মকান্ড ব্যাহত হয় এমন কাউকেই ছাড় না দেওয়ার অভিমত জানিয়েছেন সুবিধাভোগী ও সুধী সমাজের নেতৃবৃন্দ।