• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:১১ অপরাহ্ন

৮০ বছর আগের মসজিদের নাম পরিবর্তনে মুসল্লিদের মাঝে ক্ষোভ


প্রকাশের সময় : মার্চ ৯, ২০২৩, ৩:৪৫ অপরাহ্ন / ৪৯
৮০ বছর আগের মসজিদের নাম পরিবর্তনে মুসল্লিদের মাঝে ক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঝালকাঠিঃ ঝালকাঠির নলছিটিতে প্রায় ৮০ বছরের পুরনো মসজিদের নাম পরিবর্তন করে আমেরিকা প্রবাসী এক ব্যক্তি নিজের নাম ব্যবহার করায় এলাকাবাসীর মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলার সুবিদপুর গ্রামে গাজী বাড়ি জামে মসজিদটির নাম রাখা হয় আমিন জামে মসজিদ।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, সুবিদপুর গ্রামে ৮০ বছর আগে একটি জমি গাজী বাড়ি জামে মসজিদের জন্য ওয়াকফাহ করা হয়। ২০২০ সালে ওই মসজিদে পাঁচ হাজার টাকা অনুদান দেয় ইসলামী ফাউন্ডেশন। সম্প্রতি স্থানীয় বাসিন্দা আমেরিকা প্রবাসী রুহুল আমিন গাজী মসজিদটি সংস্কার করেন। এ সময় তিনি মসজিদের পুরনো নাম পরিবর্তন করে ‘আমিন জামে মসজিদ’ নামকরণ করেন। এলাকার মুসল্লিদের সাথে আলোচনা না করেই মসজিদের নাম পরিবর্তন করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তাঁরা। স্থানীয় গ্রামবাসী ও মুসল্লিরা মসজিদের নাম ‘গাজী বাড়ি জামে মসসজিদ’ নামে রাখার দাবি জানিয়েছেন।

মুসল্লিদের অভিযোগ, শুধু মসজিদের নাম পরিবর্তন করেই ক্ষান্ত হয়নি রুহুল আমিন। তিনি ওই মসজিদের সকল তদারকি একাই করছেন। তাঁর পছন্দের হুজুর রেখে এটি পরিচলানা করছেন। মসজিদের কোন কমিটির প্রয়োজন নেই, তিনি যা বলবেন সে অনুযায়ী চলবে বলেও ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এতে মসজিদে মুসল্লির সংখ্য দিন দিন কমে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী ও মসজিদের মুসল্লিরা পুরনো নাম বহাল ও রুহুল আমিনের একক কর্তৃত্বরোধে প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সুবিদপুর ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে। সুবিদপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল গফ্ফার মুসল্লিদের নিয়ে বৈঠক করে পুরনো নাম বহাল রাখার সিদ্ধান্ত দেন। এর পরেও প্রভাবশালী রুহুল আমিন মসজিদের পুরনো নাম এখনো বহাল করেননি। তিনি কারো কথাই শুনছেন না বলেও অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। এমনকি মসজিদের নাম পরিবর্তন নিয়ে রুহুল আমিনের সাথে তাঁর আত্মীয়-স্বজনের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। তাঁর ভাইসহ অন্যন্য আত্মীয়-স্বজনরাও চাইছেন মসজিদের পুরনো নাম বহাল রাখতে।

এদিকে মসজিদের নাম পরিবর্তন করা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে আমেরিকা প্রবাসী দুই ভাইয়ের মধ্যে নলছিটি শহরের হাসপাতাল সড়কে একটি সম্পত্তি নিয়েও বিরোধ দেখা দিয়েছে। ভাই রফিকুল গাজী জমির সীমানাপ্রাচীর দিলে রুহুল আমিন লোকজন দিয়ে রাতের আঁধারে সীমানাপ্রাচীর ভেঙে ফেলে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত রফিকুল ইসলাম গাজী নলছিটি থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন।

পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছেন বলে জানিয়েছে নলছিটি থানার ওসি মো. আতাউর রহমান।
আমেরিকা থাকায় রুহুল আমিনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।