• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:০১ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জের মধ্যনগরে মানববন্ধনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশের সময় : মার্চ ২, ২০২৩, ৯:১১ অপরাহ্ন / ১৮৬
সুনামগঞ্জের মধ্যনগরে মানববন্ধনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক, মধ্যনগর ও ধর্মপাশা, সুনামগঞ্জঃ সুনামগঞ্জের মধ্যনগর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান রোকনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনের প্রতিবাদে এক সংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুুপুর ২টায় মধ্যনগর উপজেলা সদরে আসাদুজ্জামান রোকন তার নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তবে বলেন, গত বুধবার দুপুরে চামরদানি ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামে আশ্রিত ভূমিহীন শতাধিক নারী-পুরুষ আমার বিরুদ্ধে ভূমিহীনদের উচ্ছেদ চেষ্টার অভিযোগ এনে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেন।
যাহা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

মূলত একটি চক্র আমাকে পারিবারিক সামাজিক ও রাজনৈতিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্য চক্রান্ত করা ছাড়া আর কিছুই নয়। তাই আমি আজ এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

৩০ বছর আগে দৌলতপুর মৌজার ১ নং খাস খতিয়ানের ৯০ নং দাগের ১৮ একর ভূমি টেপিরকোনা ও বলরামপুর গ্রামের কয়েকজন বন্দোবস্ত নেন। কিন্তু ভূমিহীন মানুষের থাকার জায়গা না থাকায় ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান খসরুজ্জামান বাবলু ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উদ্যোগে বন্দোবস্ত পাওয়া ব্যক্তিদের সাথে সমন্বয় করে সেখানে ভূমিহীনদের থাকার জায়গা করে দেওয়া হয়। কিন্তু সম্প্রতি বন্দোবস্তপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা অবশিষ্ট জায়গায় স্থাপনা নির্মাণ করতে চাইলে আশ্রিত ভূমিহীনদের সাথে তাদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বন্দোবস্তপ্রাপ্তদের পেছন থেকে রোকন ও তার লোকজন উসকানী দিচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠে।

আসাদুজ্জামান রোকন বলেন, আমার বড় ভাই ভূমিহীনদেরকে বন্দোবস্ত প্রাপ্তদের কাছ থেকে জায়গা নিয়ে থাকতে দিয়েছিলেন। কিন্তু ভূমিহীনদের উচ্ছেদের নামে জড়িয়ে আমার পারিবারিক সম্মান নষ্ট করতে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অপবাদ দিয়ে আমাকে রাজনৈতিক এবং সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করা হয়েছে। আমি আশ্রিত ভূমিহীনদের উচ্ছেদের পক্ষে নই। আমি শুধু বন্দোবস্তপ্রাপ্তরা কীভাবে তাদের জায়গায় ফিরে যাবে সে ব্যাপারে পরামর্শ দিয়েছিলাম।

আপনারা সাংবাদিক জাতির আয়না। আমি আপনাদের কাছে জানতে চাই। আমি কোন দোষের দোষী। কেন? আমার এবং আমাদের পারিবারিক, সামাজিক ইজ্জতকে এভাবে চ্যালেন্জ করল কোন অদৃশ্য শক্তির বলে। আমি এখনও বুঝতে পারছি না। আমার বাবা আমার বড় ভাই চামারদানি ইউনিয়নের একাধিক বার চেয়ারম্যান ছিলেন । আমি এবং আমাদের পরিবার কোন ভূমিহীনদের জাগা দখল করতে পারি না।