• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোফাজ্জলকে মারধর, মামলা করায় আবারও হুমকির শিকার


প্রকাশের সময় : মে ৮, ২০২৩, ১:২০ অপরাহ্ন / ৮৯
সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোফাজ্জলকে মারধর, মামলা করায় আবারও হুমকির শিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুরঃ গাজীপুরের শ্রীপুরে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে পোলট্রি ফার্মে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ঢুকে পোলট্রি ব্যবসায়ী ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোফাজ্জল হোসেনকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় মাললা দেওয়ায় আবারও বিভিন্ন ধরনের প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে আসামি পক্ষ। ঘটনার দিন আহত মোফাজ্জলকে তাঁর স্বজনেরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে আবারও বাধা দেওয়া হয়। পরে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

রোববার সকালে শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের সোনাব গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত মোফাজ্জল হোসেন (২৭) একজন আওয়ামী লীগের একজন সক্রীয় কর্মী। তিনি উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের সোনাব গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে। তিনি কাওরাইদ ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ছিলেন। এঘটনায় তিনি ছাড়াও তার নানা গুরুতর আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর মা বাদী হয়ে শ্রীপুর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, মামলা নং৪/১৪২ মামলায় অভিযুক্ত আসামীরা হলেন কাওরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের ২ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আশরাফুল ঢালী (৩৮), তাঁর ভাই আতিকুল ঢালী (৩০), এমদাদুল ঢালী (৪৫) ও রমিজ উদ্দিন ঢালী (৫৫) মামুন ঢালী (৩২), নজরুল ইসলাম ঢালী(৪৭),গুলম ঢালী( ৩৮), আলতাফ ঢালী(২৫), রাব্বি (২৪),সালমান ঢালী (২৫)।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, সকাল ১০ টার দিকে স্থানীয় ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে লোকজন নিয়ে হামলা চালানো হয়। এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে মোফাজ্জল হোসেনকে গুরুতর জখম করা হয়। পরবর্তী সময় স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানোর চেষ্টা করলে অভিযুক্তরা বাধা দিয়ে আবারও মারধর করে।

আহত যুবকের মা মরিয়ম আক্তার বলেন, ‘ওরা আমার ছেলেকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে, মাথায় অনেক আঘাত করেছে। পরে খবর পেয়ে ছেলেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে রওনা হলে পুনরায় বাধা প্রধান করে। পরবর্তীতে আমি জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করলে পুলিশ এসে আমার ছেলেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।’

এ বিষয়ে অভিযোক্তদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম জানান, জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে আহতদের হাসপাতালে পাঠানো হয়, পরবর্তীতে মামলা নেওয়া হয়েছে, আসামীদের ধরতে অভিযান চলমান রয়েছে।