বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০১:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
রাজধানী সবুজবাগ অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েকে বিয়ে দিতে অসুস্থ বাবা হাইকোর্টে রুল জারি রাজধানী সবুজবাগ একটি চক্র অনুমতি ছাড়াই বিভিন্ন জনের নামে সিমকার্ড উত্তোলন করতেন শহীদ কামারুজ্জামানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ডাঃ অর্ণা জামানের পক্ষে খাবার বিতরণ বঙ্গবন্ধুর সহচর শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান হেনার ৯৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে খাবার বিতরণ  গোপালগঞ্জে জামিন পেয়ে বাদীর ছোট ভাই কলেজ ছাত্রকে হাতুড়ি পেটা করার অভিযোগ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মধ্যনগর থানার মানবিক ও সি’র’ ত্রাণ বিতরন রাজধানীতে চোরাই ল্যাপটপসহ ৪৩ মোবাইল ফোনসেট উদ্ধার, ১৭ জন গ্রেফতার অসহায় বানভাসিদের পাশে দাড়ালো সম্মিলিত সাংবাদিক সমাজ অবশেষে টোল আদায় বন্ধ হচ্ছে পোস্তগোলা ব্রিজে রাজধানী ধলপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ কনস্টেবল নিহত

সাতক্ষীরায় পুলিশের এএসআই এর অমানবিকতা : অক্সিজেনের অভাবে মারা গেল এক বৃদ্ধ!

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ৯ জুলাই, ২০২১
  • ১৫৮ Time View

নিজস্ব প্রতিনিধি,সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরায় অসুস্থ বৃদ্ধ পিতার জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে যাওয়ার পথে শহরের ইটাগাছা হাটের মোড়ে পুলিশ ছেলেকে দু’ঘণ্টা আটকে রাখায় অক্সিজেনের অভাবে ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বৈচনা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত ওই বৃদ্ধর নাম মোঃ রজব আলী মোড়ল (৬৫)। তিনি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বৈচনা গ্রামের বাসিন্দা।

বৃদ্ধ’র ছেলে ওলিউল ইসলাম জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে অসুস্থ বৃদ্ধ পিতা। জরুরী অক্সিজেন প্রয়োজন। সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার একজন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে বাড়িতে যাচ্ছিলাম। বেলা দশটার দিকে ইটাগাছা হাটের মোড়ে পৌঁছালে তাকে আটক করেন ইটাগাছা ফাঁড়ির এএসআই সুভাষ চন্দ্র। লকডাউনে বাইরে বেরিয়েছে বলে তার কাছে এক হাজার টাকা দাবি করেন। দাবিকৃত টাকা দিতে না পারায় তাকে দুই ঘন্টা সেখানে আটকে রাখা হয়। পরে ইটাগাছা এলাকার জনৈক জিয়াউল ইসলামের মধ্যস্থতায় ২০০ টাকা নিয়ে এএসআই সুভাষচন্দ্র তাকে ছেড়ে দেন। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরী হয়ে গেছে। বাড়িতে যেয়ে দেখি অক্সিজেনের অভাবে আমার পিতা মারা গেছেন।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি আরো বলেন, যদি সময় মতো অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে বাড়িতে যেতে পারতাম তাহলে হয়তো আমার পিতাকে বাঁচানো যেত। তিনি এই অমানবিক ঘটনার বিচার দাবি করেন।

এই ঘটনা জানার জন্য ইটাগাছা পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই সুভাষ চন্দ্র বলেন, ওই ব্যক্তির মোটর সাইকেলের কাগজপত্র দেখতে চেয়েছিলেন। তিনি দেখাতে পারেননি সেজন্য বাড়ি থেকে কাগজপত্র এনে দেখাতে বলেছিলাম। অক্সিজেনের বিষয়টি জানার পর বলেছিলাম পরে এসে কাগজপত্র দেখিয়ে যেতে। তাকে বেশি সময় আটকে রাখিনি। পরে শুনলাম তার বাবা মারা গেছেন। এটি দুর্ঘটনাবসত হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি দেলোয়ার হুসেন কিছুই জানেন না উল্লেখ করে বলেন, ঘটনা সম্পর্কে আমি খোঁজ খবর নিচ্ছি।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) সজিব খান বলেন, বিষয়টি তিনি জেনেছেন। অভিযুক্ত এএসআই সুভাষ এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পক্রিয়া শুরু করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 ajkerbd24.com
Design & Development By: Atozithost
Tuhin