• ঢাকা
  • সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:২৯ অপরাহ্ন

সন্ত্রাসী লিজনের রিমান্ড শুনানি পিছালো এক সপ্তাহ


প্রকাশের সময় : জুন ১৪, ২০২২, ১০:৩১ অপরাহ্ন / ৮৩
সন্ত্রাসী লিজনের রিমান্ড শুনানি পিছালো এক সপ্তাহ

রাজিব আহমেদ, নরসিংদীরঃ শীর্ষ সন্ত্রাসী,চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী ও হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী লিজন মোল্লাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। লিজন

সদর উপজেলার পৌর এলাকার বাসাইল মহল্লার বাসিন্দা প্রয়াত আলমগীর মোল্লার ছেলে।
গত রোববার (১২ জুন) দুপুরে তাকে গ্রেফতার করে নরসিংদী সদর মডেল থানা পুলিশ।
গতকাল ৭দিনের রিমান্ড চেয়ে তাকে আদালতে হাজির করলে আদালত আজ রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে তাকে কারাগারে প্রেরণ করে।

কিন্তু মামলার আযু উপস্থিত না থাকায় আগামী সোমবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে আদালত।

সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ফিরোজ তালুকদার পিপিএম(বার) সন্ত্রাসী লিজন পুলিশের তালিকা ভুক্ত সন্ত্রাসী এ কথা স্বীকার করে বলেন,

তাকে গ্রেফতারের পর তার বিরুদ্ধে আরো নানা অভিযোগ আসছে। তার বিরুদ্ধে হত্যা ডাকাতি-চাঁদাবাজী ও মাদক সহ ৭/৮ মামলা রয়েছে।

স্থানীয় একটি প্রাইভেট হাসপাতালে চাঁদাবাজি ও মারপিটের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আরো একটি মামলা রুজু হয়েছে। মামলার বাদী অবসরপ্রাপ্ত বিডিআর সদস্য মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান মামুন জানান, তাঁকে যাতে রিমান্ডে না নিতে পারে এর জন্য নানা ষড়যন্ত্র করছে একটি প্রভাবশালী মহল। পুলিশ তাকে রিমান্ডে নিলেই তার সাথে জড়িতদের নাম প্রকাশ হয়ে যেতে পারে। এসনকি তার কাছে মজুত থাকা অস্ত্রের সন্ধান যাতে পুলিশ না পায় সে কারণে কৌশলে শুনানির তারিখ এক সপ্তাহ পিছিয়ে দিয়ে আমাকে আপোষের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। তিনি দুঃখ করে আরো বলেন যখন সে চার চারবার আমার কাছ থেকে চাঁদা নেয় এবং গায়ে হাত তুলে তখন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সবাই চুপ ছিল অথচ আজকে তারা সন্ত্রাসীর পক্ষাবলম্বন করছে।

মামুন আরো জানান, আমার বাবা পুলিশে চাকরী করতেন আমার দুই ভাই বোন পুলিশের সদস্য তারপর আমি নির্যাতিত হচ্ছি বিচার পাচ্ছিনা। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।
মামলা করার আগে এলাকার কাউন্সিলর পারভেজকে জানালে তিনি লিজন কে আরো ২০ হাজার টাকা দিতে বলেন। কাউন্সিলরের কথা মোতাবেক গত ৬ জুন হাসতালের ম্যানেজার সবুজের মাধ্যমে তাকে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দেয়া হয়। মোট ৬০ হাজার টাকা দিয়েও শান্তিতে ব্যবসা চালাতে পারিনি। সন্ত্রাসীদের ভয়ে নিরূপায় হয়ে নরসিংদী সদর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পর পুলিশ রবিবার (১২) দুপুরের দিকে সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ লিজন মোল্লাকে গ্রেফতার করে। এলাকার শান্তিপ্রিয় মানুষ তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করলেও প্রভাবশালীরা তার পক্ষ নিয়েছে।