• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে মাদক সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় কৃষককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা


প্রকাশের সময় : মার্চ ১৬, ২০২২, ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন / ২৩৬
রাজশাহীতে মাদক সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় কৃষককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা

রাজশাহী ব্যুরো: রাজশাহীর উপকন্ঠে চারঘাট উপজেলার শলুয়া ইউনিয়নের তাঁতারপুর গ্রামে মাদক সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় মোঃ শাহবাজ আলী (৫০) নামক এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে হত্যার ঘটনা ঘটে।ওখানকার স্থানীয় ব্যক্তি’রা জানান সন্ধ্যায় মাগরিব নামাজের পর, বানেশ্বর বাজারের দিক থেকে মোটরসাইকেল যোগে আক্কাসের মোড়ে এসে থেমে নেমেই কৃষক শাহবাজ আলীর উপরে হামলা চালানো হয়। এমনটাই সূত্র জানায় যারা এই হত্যার সাথে জড়িত তাঁরা সকলেই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। এবং মাদক ব্যবসায়ীরায় কৃষক শাহবাজ আলীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। তাদের সবার হাতে ছিলো ধারালো অস্ত্র, হাঁসুয়া, চাকু, কাঁনতাই, দিয়ে কৃষক শাহবাজ আলীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে ফেলে পালিয়ে যায় মাদক সিন্ডিকেট”রা। নিহত কৃষক ওই এলাকার মোঃ আব্দুল জাব্বার আলীর ছেলে শাহবাজ আলী, সে একজন পেশায় কৃষক ছিলেন। নিহত শাহবাজ শলুয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার সাহাবুর রহমানের কর্মী ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তাঁতারপুর আক্কাসের মোড়ে মোটরসাইকেল রেখে বসে ছিলেন কৃষক শাহবাজ আলী (৫০)। এমন সময় তাঁতারপুর গ্রামের মনোয়ারের ছেলে, চিহ্নিত মাদক সিন্ডিকেট কামাল হোসেন ও দুলালের নেতৃত্বে রজব, জার্দিস, ডালিম, মোজাম্মেল, জিয়া, সবুজ, ইউনুস, আতিক, সাগর-সহ অজ্ঞাত ১০/১৫ জন মোটরসাইকেল যোগে নেমেই ধারালো অস্ত্র হাঁসুয়া হাতে নিয়ে আক্কাসের মোড়ে গিয়ে শাহবাজ আলীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা হয়। এতে কৃষকের মৃত্যু হয়।তাঁতারপুর আক্কাসের মোড়ে ইউপি সদস্যে কর্মী কুদ্দুসের ছেলে কাজল ও জালাল উদ্দীনের ছেলে কালাম’কে ধাওয়া করলে তাঁরা ঘটনাস্থল থেকে পলিয়ে খুনি’রা রক্ষা পেয়ে যায়। পরে একটি মটোরসাইকেল ভাংচুর করে এছাড়াও ইউপি সদস্য সাহাবুর রহমানের বড় ভাই বাবর আলীকেও হত্যার হুমকি দেয়ার ঘোষনা দিয়ে হত্যাকারী’রা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চলে যায়। ওই গ্রামের অনেকেরই চেনা-জানা চিহ্নিত মাদক সম্রাট সিন্ডিকেটের মূলত হোতা কামালসহ সবাই।

পরে স্থানীয়’রা আহত অবস্থায় কৃষক কে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের পথেই যেতে না যেতেই কৃষক শাহবাজ আলী মারা যান। এসময় খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে। ঘটনার পর ওই এলাকার পুরোগ্রাম আতংকে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। চারঘাট মডেল থানার (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম জানান, তাঁতারপুর আক্কাসের মোড় এলাকার মাদক কারবারি সিন্ডিকেটদের প্রতিবাদ করে আসছিল নিহত কৃষক শাহাবাজ আলী। গত ২০/২২ দিন পুর্বে তাঁতারপুর গ্রামের মনোয়ার হোসেনের ছেলে, মাদক ব্যবসায়ী কামাল হোসেন ও তার সহদ্বর কফেল’কে মাদকসহ আটক করেছিল র‌্যাব-পুলিশের যৌথ দল। পরে মাদক কারবারিকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

থানার ওসি আরও বলেন গত সোমবার মাদক ব্যবসায়ী কামাল হোসেন আদালতের মাধ্যমে জামিনে মুক্ত হয়ে এলাকায় আসেন। ওই দিনই দুইভাইকে ধরিয়ে দেয়ার সন্দেহে কাজ করলে কৃষক শাহবাজ আলীকে মোবাইল ফোনে হুমকি ধামকি দেয় কামাল। এর পরেরদিন মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে কৃষক শাহবাজ আলী, নিজ গ্রামের মন্ডলপাড়া এলাকায় আক্কাসের মোড়ে বসে গল্প করার সময়। অতর্কিতভাবে পেছন দিক থেকে হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মাদক সিন্ডিকেট কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ৮/১০ জনের একটি দল। এ সময় তারা শাহবাজ আলীকে এলোপাতাড়ি ভাবে কুপিয়ে জখম করলে এ-সময় মৃত্যু হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শলুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের নির্দেশে ইউপি সদস্য সাহাবুর রহমান। তার নিজ ৮-নং ওয়ার্ড তাঁতারপুর ও কারিগরপাড়া গ্রাম এলাকায় মাদক মুক্ত ঘোষনা করেন। এ কাজে তাকে সহযোগিতা করে আসছিলেন নিহত শাহবাজ আলী। এতে মাদক সম্রাট কামাল ও তার ভাই কফেল তাদের ক্ষুদ্ধ হয়। এর আগে ওই গ্রাম এলাকায় মাদক কারবারিদের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে র‌্যাব-পুলিশ যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছিল। এরই জের ধরে মূলত হোতা কামাল ও তার ভাই কাফেল দলবল নিয়ে গিয়ে কৃষক শাহাবাজ আলীর উপর হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এই হত্যার সম্পুর্ণ ঘটনার বিস্তারিত জানতে ভিডিও নিউজে চোখ রাখুন।….