• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় ৭ মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত


প্রকাশের সময় : মার্চ ১১, ২০২৩, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন / ১৮৭
যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় ৭ মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, যুক্তরাষ্ট্রঃ যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

ফ্লোরিডা স্টেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাঈম খান দাদন এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আরশাদ আলীর সঞ্চলনায় এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে নাঈম খান দাদন বলেন, ‘ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ বাঙালি জাতিকে সংঘবদ্ধ হতে সহায়তা করেছিল, ৭ মার্চে রেসকোর্স থেকে বঙ্গবন্ধুর ঘোষণা না আসলে হয়তো এতো অল্প সময়ের মধ্যে প্রতিরোধ ও জেগে ওঠার মানসিকতা গড়ে উঠতো না। দীর্ঘ ৯ মাস মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে গণমানুষের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে সেই মহাকাব্য। ৭ই মার্চের ১৯ মিনিটের সুমধুর ভাষণটি বিশ্বের ১২টি ভাষায় অনুদিত হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘ইউনেস্কো ২০১৭ সালের ৩১ অক্টোবর ঐতিহাসিক ভাষণটি ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার’ এ অন্তর্ভুক্ত করে। এটি নি:সন্দেহে সমগ্র বাঙালির জন্য একটি গর্বের বিষয়, অহংকারের বিষয়।’

এই ছাড়াও উপস্থিত বক্তারা ৭ই মার্চের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, ‘বাঙালির কৃষ্টি ও সংস্কৃতিকে সমুন্নত রেখে গেরিলা যুদ্ধের মাধ্যমে কিভাবে দেশ স্বাধীন করতে হবে বঙ্গবন্ধু ৭ই মার্চের ভাষণের মাধ্যমে বাঙালি জাতির মুক্তির পথ স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন অনন্তকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৭ই মার্চের ভাষণের মাধ্যমে। এ ভাষণ আমাদের মুক্তির মন্ত্র, সংগ্রামের চেতনা, আত্মত্যাগের প্রেরণা।’

তারা আরও বলেন, ‘১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ ঐতিহাসিক রেসকোর্সে দেয়া বঙ্গবন্ধুর ভাষণটি যে কোন বিচারেই বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট তো বটেই বিংশ শতাব্দীতে সারা বিশ্বে যতগুলো রাজনৈতিক বক্তৃতা দেয়া হয়েছে তার অন্যতম ও ব্যতিক্রম। ১৯ মিনিটের এই ভাষণে একটি দেশের ইতিহাস জনগণের প্রত্যাশা ও তাদের সঙ্গে ক্ষমতাসীনদের প্রতারণা, তাদের ত্যাগ আগামী দিনের জন্য দিক নির্দেশনা সবই উঠে এসেছে।’
অনুষ্ঠানে, ফ্লোরিডা স্টেট মহানগর আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মী ও বিভিন্ন ইউনিটের নেতা কর্মী ও বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।