• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৪২ পূর্বাহ্ন

যশোরের বেনাপোলে বন্ধন এক্সপ্রেস এ টাস্কফোর্সের অভিযান


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ৯, ২০২৩, ৯:২১ অপরাহ্ন / ৬৪
যশোরের বেনাপোলে বন্ধন এক্সপ্রেস এ টাস্কফোর্সের অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোরঃ কলকাতা-খুলনা রুটে ৪৫৬ আসনের আন্তর্জাতিক মানের যাত্রিবাহী ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ নামের ট্রেনটি চালু হয় ২০১৭ সালের ১৬ ই নভেম্বরে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ট্রেনটির কেবিনে সিট ভাড়া ১ হাজার ৫শত টাকা ও চেয়ার কোচের ভাড়া ১ হাজার টাকা (ভ্রমণকর ৫ শত টাকাসহ) নির্ধারণ করা হয়। “বন্ধন এক্সপ্রেস” চালুর পর থেকে যাত্রীরা সরাসরি খুলনা-কলকাতা যাতায়াত করছে। বেনাপোলে যাত্রীর পাসপোর্ট, ভিসাসহ ইমিগ্রেশনের যাবতীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়। সপ্তাহের প্রতি রবিবার ও বৃহস্পতিবার সকালে ট্রেনটি কলকাতা থেকে ছেড়ে আসে। আবার বিকেলে খুলনা থেকে কলকাতার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

ট্রেনটিতে অবৈধ মালামাল পারাপার, চোরাচালানী রোধ এবং যাত্রী যাতায়াতের সুবিধার্থে কঠোর নিরাপত্তা অবলম্বণ করা হয়ে থাকে। তবে দুঃখের বিষয়, গত বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল/২০২৩ ইং) তারিখ সকালে ঐ ট্রেনটিতে টাস্কফোর্সের অভিযানে প্রায় ১৬ লাখ টাকা মূল্যের বিপুল পরিমাণ ভারতীয় পণ্য ও বিদেশি মদ ধরা পড়ে। বিষয়টি মাথায় নিয়ে যাত্রীসেবা সুনিশ্চিত করতে রেইলে চোরাচালান রোধ এবং বহিরাগত ঠেকাতে শার্শা উপজেলা প্রশাসন টাস্কফোর্স গঠণ করে।

৯ এপ্রিল ( রবিবার )২০২৩ ইং) তারিখ সকালে, বেনাপোল রেলস্টেশনে কলকাতা হতে আগত “বন্ধন এক্সপ্রেস” এ অভিযান পরিচালনাকালে। টাস্কফোর্সের অভিযান পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে, ঐ ফোর্সের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা ইসলাম, উপজেলা সহকারী (ভূমি) কমিশনার জানান, ৬ এপ্রিলের ঘটনা মাথায় রেখে এবং পবিত্র ঈদুল ফিতরে যাত্রীসেবা নিশ্চিত করতে ট্রেনে টাস্কফোর্সের অভিযান জোরদার করা হয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে আজকের “বন্ধন এক্সপ্রেস” ট্রেনে অভিযান পরিচালনা করে ভারত হতে অবৈধভাবে আনা ভারতীয় কাপড়, থ্রী-পিচ এবং কসমেটিক পণ্য জব্দ করে রেলওয়ে কাস্টম দপ্তরে জমা প্রদান করা হয়। এ সময় স্থানীয় দুই বহিরাগতকে সাতদিন করে জেল প্রদান এবং একজনকে ২০০০ (দুই হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়।

টাস্কফোর্স অভিযান পরিচালনা করার সময়, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে আইনি সহায়তা প্রদান করেন- ৪৯, বিজিবি’র বেনাপোল কোম্পানী কমান্ডার আবু সাইদ, খুলনা রেলওয়ে পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোল্লা কবির উদ্দিন, বেনাপোল পোর্টথানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ কামাল হোসেন ভূঁইয়া, বেনাপোল চেকপোষ্ট এর ইমিগ্রেশন অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আহসান কবির, বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার-সাইদুজ্জামান, বেনাপোল রেল পুলিশ কর্মকর্তা, যশোর থেকে আগত আরএনবি কর্মকর্তা- এএসআই বদর উদ্দিন, বেনাপোল আরএনবি কর্মকর্তা-এএসআই রানা সহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার অফিসারবৃন্দ।