• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০২:৫২ পূর্বাহ্ন

যশোরের বাগআঁচড়ায় শিশু ডাক্তার সাঈদের ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু, এলাকায় ক্ষোভ


প্রকাশের সময় : মে ৬, ২০২৩, ৮:২০ অপরাহ্ন / ৮৫
যশোরের বাগআঁচড়ায় শিশু ডাক্তার সাঈদের ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু, এলাকায় ক্ষোভ

আজিজুল ইসলাম, যশোরঃ যশোরের শার্শার বাগআঁচড়া বাজারে শিশু বিশেষজ্ঞ নামধারী হাতুড়ে ডাক্তার আবু সাঈদের ভুল চিকিৎসায় ফারিহা নামে ৩ বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শিশু ফারিহা উপজেলার চালতিয়াবাড়িয়া গ্রামের আবু ছিদ্দিকের মেয়ে। শিশুটির মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একই সাথে হাতুড়ে ডাক্তার আবু সাঈদের বিরুদ্ধে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে এলাকাবাসী মধ্যে। জানাগেছে, বিগত কয়েক বছর পূর্বে শার্শা উপজেলার পশ্চিম কোটা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে গ্রাম্য হাতুড়ে ডাক্তার আবু সাঈদ বাগআঁচড়া বাজারে শিশু চেম্বার নামে একটিু ক্লিনিক খুলে বসে। শুক্রবার বিকেলে সাঈদের ওই ক্লিনিকে উপজেলার চালিতাবাড়িয়া গ্রামের আবু ছিদ্দিকের শিশু কণ্যা ফারিয়া চিকিৎসা নিতে এলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এসময় হাতুড়ে ডাক্তার সাঈদ স্বজনরা কিছু বুঝে উঠার আগেই তড়িঘড়ি করে মৃত্যু শিশুটিকে বাড়ি নিয়ে যেতে বলে। ফলে নিরুপায় হয়ে শিশুটির স্বজনেরা মৃত্যু শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে যায়। সংবাদটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। এবং হাতুড়ে ডাক্তার আবু সাঈদের বিরুদ্ধে এলাকাবাসী ক্ষোভে ফঁসে উঠে। তারা হাতুড়ে ডাক্তার আবু সাঈদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য জেলা সিভিল সার্জন, উপজেলা সাস্থ্য কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট দাবি জানিয়েছে। এবিষয়ে শিশু চেম্বারের স্বত্বাধিকারী আবু সাঈদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি চিকিৎসা দেয়নি। তবে শিশুটির শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল দেখে বাহির থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার এনে দেওয়ার পর অক্সিজেন চলাকালীন শিশুটির মৃত্যু হয়। এব্যাপারে উপজেলা সাস্থ্য কর্মকর্তা ইউছুফ আলী বলেন, ইতিপূর্বে অভিযোগের ভিত্তিতে তার চেম্বারটি বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সে নির্দেশনা উপেক্ষা করে চেম্বার চালাচ্ছে সেটা আমার জানা নেই। শিশু মৃত্যুর বিষয়টি এই মাত্র শুনলাম। এবিষয়ে আইন অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এর আগে ভুয়া চিকিৎসক আবু সাইদ পরিচালিত প্রতিষ্টানে বৈধ কোন কাগজপত্র দেখাতে না পারায় বন্ধ ঘোষনার নির্দেশনা দেয় যশোর জেলা সিভিল সার্জন। সপ্তাহখানেক বন্ধ থাকার পর খুলে যায় চেম্বার। তার নেই কোন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সার্টিফিকেট । ঢাকা যশোর ও কেশবপুরের কতিপয় প্রতারক চক্রের কাছ থেকে ভুয়া সার্টফিকেট নিয়ে নিয়ম বর্হিভূতভাবে চলছে তার ক্লিনিক ব্যবসা।সেবার নামে সর্বশান্ত করা হচ্ছে এলাকার সাধারন মানুষকে।ভুল চিকিৎসায় অকালেই নিভে যাচ্ছে অনেক জীবন।