• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৪৬ অপরাহ্ন

মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১৭, ২০২৩, ১২:৪৪ অপরাহ্ন / ৩২
মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত

মতিউর রহমান রিয়াদঃ মহান বিজয় দিবস আজ। বাঙালীর বীরের জাতি হিসেবে আত্মপ্রকাশের দিন। পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ নামে একটি স্বাধীন ভূখণ্ডের নাম জানান দেয়ার দিন। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাক সেনাদের আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ১৬ই ডিসেম্বরকে স্মরণীয় করে রাখতে

মুন্সিগঞ্জ, লৌহজং উপজেলায় নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে যথাযোগ্য মার্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার সূর্যদ্বয়ের পরপরই ৩১ বার তোপ ধোনির মধ্য দিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বরে অস্থায়ী স্মৃতি স্তম্ভে পুষ্প স্তবক অর্পন করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। উপজেলা পরিষদ। উপজেলা প্রশাসন। লৌহজং থানা পুলিশ। পদ্মা উত্তর থানা পুলিশ। লৌহজং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন সহ সর্বস্তরের মানুষ। এসময় শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ৯ টায় লৌহজং উপজেলা পরিষদ মাঠে জাতীয় পতাকা উত্তোলন। পায়রা অবমুক্ত। বেলুন ও ফেষ্টুন উড়িয়ে মহান বিজয় দিবসের শুভ উদ্বোধন করা হয়। পরে সেখানে প্যারেড পরিদর্শণ, কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লের অনুষ্ঠিত হয়। এতে লৌহজং থানা পুলিশ, আনসার, ফায়ার ব্রিগেডয়ের সদস্যসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠান শেষে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

এছাড়া এদিন সকাল ১১.৩০ টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় স্টেজ মাতাতে উপস্থিত হয়েছিলেন দেশবরেণ্য কণ্ঠশিল্পী প্রতীক হাসান, তানজিন বৃষ্টি সহ দেশের প্রখ্যাত শিল্পীরা।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওসমান গনি তালুকদার। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন। উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন তপন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিনা ইসলাম। এসিল্যান্ড ইলিয়াস শিকদার। লৌহজং থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খন্দকার ইমাম হোসেন। ওসি তদন্ত সাইফুল ইসলাম। লৌহজং সরকারি কলেজে প্রিন্সিপাল মোজাম্মেল হক। বীর মুক্তিযোদ্ধারা। উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী বৃন্দ। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ও লৌহজং উপজেলার সর্বস্তরের মানুষ প্রমূখ।