• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ন

মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ে ডহুরি তালতলা খালে পানিতে ডুবে যুবকের মৃত্যু


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ৭, ২০২৪, ১১:৩৩ অপরাহ্ন / ৩১
মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ে ডহুরি তালতলা খালে পানিতে ডুবে যুবকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলা গাঁওদিয়া ইউনিয়ন নুরপুর গ্রামের বাসিন্দা মো.শাহ আলম বেপারী ছেলে মোঃ শান্ত বেপারী (২৪) ডহুরি তালতলা খালে পানিতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ও নৌ পুলিশ এবং স্থানীয় জেলেদের সহযোগিতা তার মৃত্যু দেহ রবিবার ৭ এপ্রিল সকাল ১০ টায় উদ্ধার করা হয়। মৃত পরিবারের লোকজন প্রশাসনের কাছে ময়নাতদন্তের বিহীন দাফনের জন্য আবেদন করেছেন।

সরজমিন গিয়ে জানা যায়, গত শনিবার ৬ এপ্রিল দুপুর আনুমানিক ২/৩ টর সময় থেকে শান্ত নিখোঁজ ছিলো। পরে আত্নীয় স্বজনের বাড়িতে খোঁজ খবর নেয়া হয় । তার মা পুকুরে গোসল করতে গিয়ে ছিলেন সেখানে খোজ করেন। পরে জানতে পারে ছেলে গাঁওদিয়া ইউনিয়ন হাড়িদিয়া গ্রামের ডহরী তালতলা খালে গোসল করতে গিয়েছে। প্রাথমিক ভাবে নিজের খালে খোজাখুজি করেন। পরে তার পরিবারের লোকজন বিষয়টি উপজেলা ফায়ার সার্ভিস জানান সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিসের দল এসে ডহরী তালতলা খালে উদ্ধার কাজ পরিচালনা করেন।

রাত ১টা পর্যন্ত তৎপরতা চালিয়েও তার কোন সন্ধান পায়নি। ৭ এপ্রিল রবিবার সকাল ৭টায় থেকে উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ও নৌ পুলিশ যৌথ ভাবে স্থানীয় জেলেদের নিয়ে (বেড় জাল) এর মাধ্যমে সকাল ১০ টার সময় মো. শান্ত বেপারী মৃত দেহ সন্ধান পায় এবং  মৃত দেহ উদ্ধার করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান গোসল করতে নামা স্থান থেকে ৩ মিটার দূরে স্বপন বেপারী বাড়ির পাসে খালের অংশে মাছ ধরা জালে তার মৃত উঠে আসে।

পরিবারের ও স্থানীয় লোকজন সাথে কথা বলে জানা যায়, মৃত শান্ত ছোট বেলা থেকে মৃগীরোগ ও মাথায় সমস্যা ছিল। যখন তার বয়স ১৪ বছর তখন সে বেশি রোগে আক্রান্ত হয়।

পরিবারের লোকজন জানান, বিভিন্ন সময়ে তাকে চিকিৎসা করা হলে সে কিছুটা সুস্থ হয় কোন কাজ কর্ম না করে বাড়িতেই থাকতো। এর আগে আর দুই বার খালের পানিতে পরে গিয়ে ছিলো তবে বড় কোনো দুর্ঘটনা ছাড়াই তাকে উদ্ধার করা হয়েছিল।

এছাড়া পরিবারের লোকজন জানান, আমাদের কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই। প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছি ময়না তদন্ত ছাড়াই তার দেহ কবর দেব।

খরব পেয়ে ঘটনা স্থলে উপস্থিত হন লৌহজং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাকির হোসেন, লৌহজং সহকারী কমিশনার ভূমি রোকসানা খায়রুন নেছা, লৌহজং থানা অফিসার ইনচার্জ খন্দকার ইমাম হোসেন।

লৌহজং উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের ইস্টিশন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মতিন জানান, গতকাল শনিবার থেকে আমাদের ফায়ার সার্ভিসের দল এবং নৌ পুলিশ মো. শান্ত বেপারি কে উদ্ধার কাজে চেষ্টা চালিয়ে ছিলো।তবে রাত ১ টা পর্যন্ত আমরা তাকে খুঁজে পাইনি। পরের দিন রবিবার সকাল ১০টায় তার মৃত দেহ খুঁজে পাওয়া গেছে এবং উদ্ধার করে পরিবারের কাছে মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।