• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৩৩ অপরাহ্ন

মন্ত্রী এম‌পির সাম‌নে লাশ ফে‌লে দেয়ার হুমকী দি‌লেন হা‌ফিজ ম‌হিউ‌দ্দিন : থানায় জি‌ডি


প্রকাশের সময় : মার্চ ৮, ২০২৪, ১:২৬ পূর্বাহ্ন / ৩৯
মন্ত্রী এম‌পির সাম‌নে লাশ ফে‌লে দেয়ার হুমকী দি‌লেন হা‌ফিজ ম‌হিউ‌দ্দিন : থানায় জি‌ডি

নিজস্ব প্রতিবেদক, পটুয়াখালীঃ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ও পটুয়াখালী-১ আসনের এমপিদের সামনে মেয়র প্রার্থী মহিউদ্দিন আহম্মেদ ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান প্রকাশ্যে লাশ ফেলে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন। মূলতঃ আগামী ৯ মার্চের পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচন ‌নি‌জেদের নিয়ন্ত্রনে রাখতে ম‌হিউ‌দ্দিন ও হা‌ফিজ লাশ ফে‌লে দেয়ার হুমকী দেন।

এ ঘটনায় গত বুধবার ৬ মার্চ সদর থানায় একটি সাধারন ডায়রী করেছেন পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ইমতিয়াজ মাহমুদ। পটুয়াখালী সদর থানায় সাধারণ ডায়রী নং-৩৮১।

সাধারন ডায়রীতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ৬ মার্চ পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক দরবার হলে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও উন্নয়ন সভা শেষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ  মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী পটুয়াখালী-৪ আসনের এমপি মুহিব্বুর রহমান মুহিব ও পটুয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য এবিএম রুহুল আমীন হাওলাদার সন্ধ্যা ৭টায় পটুয়াখালী সার্কিট হাউসে স্থানীয় নেতাকর্মী গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে মতবিনিময় করছিলেন। এসময় পৌর নির্বাচনে জগ প্রতিকের প্রার্থী মহিউদ্দিন আহম্মেদ ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান (বোমা হাফিজ), শোয়েব পিতা বজলুর রহমান, তোফাজ্জল, পিতা আঃ রহিম, আজম পিতা অজ্ঞাত (সবুজবাগ) বাপ্পী পিতা-মৃত ছালাম মিয়া আনসার ক্যাম্প সংলগ, আউয়াল আকন পিতা আঃ লতিফ আকন, অপু সিকদার পিতা মন্নান মাষ্টার, আনিসুর রহমান পিতা মন্নান মিয়া, আল আমিন পিতা আজিজসহ প্রায় ৫০ জন সার্কিট হাউজে প্রবেশ করে।

এ সময় মন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান হুমকি দিয়ে বলেন, ৯ মার্চের নির্বাচনে লাশ পড়বে। যেকোন মূল্যে আমরা নির্বাচন আমাদের নিয়ন্ত্রনে রাখবো। আমরা জগ মার্কার জয়ের জন্য যা যা প্রয়োজন তাই করবো। এ সময় প্রার্থীর সাথে যারা উপস্থিত ছিলো তারা সবাই এই শহরের সন্ত্রাসী। এরমধ্যে কয়েকজনের নামে হত্যা সহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মামলা রয়েছে। এমতাবস্থায় আসন্ন পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচন বানচালসহ এলাকার আইন শৃংখলা পরিস্থিতির চরম অবনতি হওয়ার আশংকার সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি ভবিষ্যতের জন্য সাধারন ডায়রীভূক্ত করে রাখা একান্ত প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন ইমতিয়াজ মাহমুদ।

জান‌তে চাই‌লে সদর থানার ওসি মোঃ জসিম ব‌লেন, এ ঘটনায় উল্লেখিত একটি সাধারন ডায়রী লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

উ‌ল্লেখ‌্য, এর আ‌গে গত ২০জানুয়ারী ২০২৪ তা‌রিখ জেলা প‌রিষদ চেয়ারম‌্যান হা‌ফিজুর রহমা‌নের বিরু‌দ্ধে আ‌রেক‌টি জি‌ডি হ‌য়ে‌ছে সদর থানায়। জি‌ডি নং ১০৩৯। দৈ‌নিক পটুয়াখালী প্রতি‌দিন প‌ত্রিকার প্রকাশক গোলাম স‌রোয়ার বাদল‌কে ঝু‌লি‌য়ে পিটা‌নোর হুমকী দেয়ার ঘটনায় জি‌ডি‌ ক‌রেন স‌রোয়ার বাদল।