• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন

বিআরটিসির জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্ম-পরিকল্পনা ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের ২য় প্রান্তিকের অংশীজন সভা অনুষ্ঠিত


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৩১, ২০২৩, ৭:৩৯ অপরাহ্ন / ৫০২
বিআরটিসির জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্ম-পরিকল্পনা ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের ২য় প্রান্তিকের অংশীজন সভা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাঃ রবিবার বিআরটিসি’র মিরপুর বাস ডিপো ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র মিরপুর, ঢাকা জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্ম-পরিকল্পনা ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের ২য় প্রান্তিকের অংশীজন সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি)’র চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম (অতিরিক্ত সচিব)। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিআরটিসি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ বিভিন্ন স্টেক হোল্ডারগণ ও সাধারন জনগণ।

স্বাগত বক্তব্যে বিআরটিসি’র পরিচালক (অর্থ ও হিসাব), ড. অনুপম সাহা (যুগ্মসচিব) বলেন, শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমাদের মাঝে উপস্থিতসহ সর্বসাধারণ সকলেই আমাদের অংশীজন। আপনাদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বিআরটিসি যে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গেছে এ সম্পর্কে সকলেই জানেন।

অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক মহাব্যবস্থাপক (আইসিডব্লিউএস ও প্রশিক্ষণ) ফাতেমা বেগম বিআরটিসির উন্নয়নের স্থিরচিত্র উপস্থিত সকলের সামনে তুলে ধরেন।

উম্মোক্ত আলোচনা পর্বে মোহাম্মদ আতিকুর রহমান লিটন বলেন, দূরদূরান্ত থেকে আগত যাত্রীদের বিশ্রামের জন্য এখানে কাউন্টার নির্মাণ করা প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানে বিআরটিসির চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, পর্যায়ক্রমে ভাড়াটিয়া তুলে দিয়ে বিশ্রামের জন্য যাত্রী কাউন্টার নির্মাণ করা হবে৷

মজিবুর রহমান নামের একজন স্টেক হোল্ডার বলেন, বর্তমানে বিআরটিসি’র বাসগুলো দেখলে খুব ভালো লাগে৷ বিআরটিসির ত্রুটিযুক্ত বাসগুলো দ্রুত মেরামত করে অন্যরুট করা হচ্ছে। বিআরটিসির সাথে অন্যান্য বাস মালিকদের প্রতিযোগীতা চলছে৷

গনপরিবহন মালিক সমিতির একজন সদস্য বলেন, গনপরিবহনের মালিক হয়েও আমি বিআরটিসির বাসে চলাচল করে স্বাচ্ছন্দবোধ করি কারন বিআরটিসির বাস গুলো যেমন পরিষ্কার তেমন ত্রুটিমুক্ত।

সভাপতির বক্তব্যে বিআরটিসির চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, বিআরটিসির একটি গাড়িও দৃষ্টিকটু থাকার সুযোগ নেই। বিআরটিসির ত্রুটিযুক্ত গাড়িগুলো দ্রুত মেরামত করে সৌন্দর্য বর্ধন করতে হবে। ভারী মেরামতকৃত গাড়িগুলোর ভারী মেরামতের জন্য ৬টি অঞ্চলে ভাগ করা হয়েছে। দক্ষ কারিগর তৈরি করার লক্ষ্যে গাজিপুর প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং তেজগাঁও মেরামত কারখানাতে আবাসিক প্রশিক্ষণ চালু করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা ও শুদ্ধতা নিশ্চিত করার মাধ্যমে বিআরটিসি’কে সর্বোচ্চ লক্ষ্যে পৌঁছানোর যে প্রয়াস তা অব্যাহত থাকবে।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ফাতেমা বেগম (জিএম, আইসিডব্লিউএস ও প্রশিক্ষণ), সভাপতির নির্দেশক্রমে উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ। জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।