• ঢাকা
  • সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৩:৪১ অপরাহ্ন

বাড়িওয়ালা ও পুলিশের সখ্যতায় ভাড়াটিয়ার ১৮ লাখ টাকা উধাও


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ৬, ২০২৪, ৬:৩৫ অপরাহ্ন / ২২
বাড়িওয়ালা ও পুলিশের সখ্যতায় ভাড়াটিয়ার ১৮ লাখ টাকা উধাও

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজধানীর রামপুরায় বাড়িওয়ালা ও পুলিশের সখ্যতায় ভাড়াটিয়ার ১৮ লাখ টাকা উধাও হয়ে গেছে। থানার কতিপয় পুলিশ সদস্য অভিযোগ তদন্তের নামে ওই বাড়িওয়ালার সাথে সখ্যতা করে ভাড়াটিয়ার ১৮ লক্ষাধিক টাকা লোপাটের অভিযোগ উঠেছে।

আর এতে ভুক্তভোগী ওই ভাড়াটিয়া সর্বশেষ পুলিশের উর্ধ্বতন মহলে অভিযোগ করেও সুফল না পেয়ে উল্টো হুমকির মুখে অসহয় হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, প্রায় আট-নয় মাস আগে জয়নাল আবেদিন নামের এক ব্যবসায়ী রামপুরা থানা এলাকার ১৮০/৬/২৩/সি পূর্ব রামপুরা আব্দুল্লাহ পার্ক নামের এ্যাপার্টমেন্টের নীচ তলার একটি দোকান আট লাখ টাকা অগ্রিম ভাড়া বাবদ দেন এবং তাতে আরো ১০-১২ লাখ টাকা বিনিয়োগও করেন। কিন্তু ব্যবসায় বেগতিক অবস্থা বুঝে এক-দুই মাসের মাথায় ভাড়াটিয়া জয়নাল দোকান ছাড়ার নোটিস দিয়ে বাড়িওয়ালার কাছে অগ্রিম টাকা ফেরত চাইতেই শুরু করেন তালবাহানা,হুমকি ধমকি। যা একপর্যায়ে থানা পর্যন্ত গড়ায় এবং গত মাস পর্যন্ত থানার প্রায় বেশীরভাগ এসআই একে একে এ বিষয়টি তদন্ত করেন।

প্রভাবশালী ও ধুরন্দর আব্দুল্লাহর কাছে যেই যায়, পরবর্তীতে তিনি দায়িত্ব ছেড়ে দিয়ে অন্য একজনকে বুঝিয়ে দেন। আর এর মধ্যে চলে বাড়িওয়ালার বেপরোয়া হুমকি-ধমকি। এভাবে চলতে থাকার এক পর্যায়ে কতিপয় পুলিশ সদস্য ও বাড়িওয়ালার লোকজন মিলে মালামাল ও টাকা ফেরত দেয়ার আশ্বাসে ডেকে নিয়ে গভীর রাতে জিম্মি করে মালামাল ও টাকা ফেরত পাওয়ার স্বীকারোক্তিতে স্বাক্ষর করিয়ে নেয় এবং নানা রকম ভয়ভীতি দেখিয়ে বিদায় করে দেয়।

এ ব্যাপারে থানায় গিয়ে কোন ফল না কারন ওই সব পুলিশ ও বাড়িওয়ালার ওই সব কিছু হজম করার পায়তারা বুঝতে পারেন। আর এতে ভুক্তভোগী ভাড়াটিয়া নিরুপায় হয়ে পুলিশ কমিশনার ও ডিসি অফিসে লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু ওই অভিযোগে প্রায় একমাসের মধ্যে কোন সুফল না হলেও সংশ্লিস্টরা খবর পেয়ে উল্টো নানা প্রকার চক্রান্তে লিপ্ত রয়েছেন। যাতে ভুক্তভোগী ভাড়াটিয়া শেষ সম্বল টুকুও হারিয়ে মানবেতর দিন কাটাচ্ছেন।