• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০২:২৯ অপরাহ্ন

বাতিল হবে প্রবর্তকের সঙ্গে চুক্তি : শর্ত মানেনি ইসকন 


প্রকাশের সময় : জুন ২৭, ২০২১, ১:২০ পূর্বাহ্ন / ১৮২
বাতিল হবে প্রবর্তকের সঙ্গে চুক্তি : শর্ত মানেনি ইসকন 

বিশেষ প্রতিনিধিঃ শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরে জমি আত্মসাৎ, ভক্তদের দানের অর্থ লোপাটসহ নানান কর্মকাণ্ডের অভিযোগ তুলে ইসকনের সঙ্গে চুক্তি বাতিলের জন্য আইনগত প্রক্রিয়ায় যাচ্ছে প্রবর্তক সংঘ। শনিবার (২৬ জুন) সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হল মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন প্রবর্তক সংঘের সাধারণ সম্পাদক তিনকড়ি চক্রবর্তী।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রবর্তক ও ইসকন উভয়পক্ষের মৌখিক আবেদনের প্রেক্ষিতে অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত ঢাকায় গত ২ এপ্রিল সমঝোতা বৈঠক করেন। কিন্তু সেখানে ইসকন কর্তৃপক্ষ উপস্থিত হয়নি। এ অবস্থার মধ্যে গত ১৩-১৬ মে ইসকন নবনির্মিত প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দির উদ্বোধন করেছে প্রবর্তক সংঘের অংশগ্রহণ ছাড়াই। ইতিমধ্যে প্রবর্তক সংঘ থেকে মন্দিরে ওঠার জন্য ভিতরের সিঁড়িটি ইসকন নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে। মন্দিরের আশপাশে চুক্তি বহির্ভূত জায়গায় তারা অনুপ্রবেশ করেছে। বায়েজিদ বোস্তামি সড়ক থেকে মন্দিরে ওঠার পথে ভিতরে নিরাপত্তা চৌকি সংলগ্ন একটি শতবর্ষ প্রাচীন গাছ অপসারণ করেছে। এতে পাহাড়ের মাটি ক্ষয় হচ্ছে। এসব ঘটনায় প্রবর্তক সংঘ থেকে ইসকনের কয়েকজনকে আসামি করে চট্টগ্রাম আদালতে গত ৮ জুন মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও বলেন, ইসকন নাম ব্যবহার করে প্রবর্তক সংঘের অনুমতি ছাড়া বিদ্যুৎ বিভাগ, কর্ণফুলী গ্যাস ও ওয়াসা কর্তৃপক্ষের কাছে জাল দলিল দিয়ে সংযোগ নেওয়া হয়েছে। দায়িদের শাস্তির আওতায় এনে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য প্রবর্তক সংঘের পক্ষ থেকে সকল প্রতিষ্ঠানে আবেদন করা হয়। এছাড়া দুদকে প্রবর্তক সংঘের পক্ষ থেকে ইসকনের বিরুদ্ধে গত ১৬ জুন অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযোগে উল্লেখ যে, ইসকন কর্তৃপক্ষ প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দির নির্মাণে কত টাকা খরচ করেছে তার কোন হিসেব নেই। চুক্তি অনুযায়ী প্রবর্তক-ইসকন যৌথ মন্দির পরিচালনা কমিটির সভা আহ্বান করে মন্দির নির্মাণের হিসাব ও তার সমর্থনে কাগজপত্র দেখাতে বললে কমিটির সম্পাদক অপারগতা প্রকাশ করেছেন।