• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০৩ পূর্বাহ্ন

পর্ব-২ শীর্ষ সন্ত্রাসী প্যাডির অন্তরঙ্গ বান্ধবী ছিলো মেহেরপুরের আলোচিত রুপা মনি


প্রকাশের সময় : অগাস্ট ২৭, ২০২১, ১:২৫ অপরাহ্ন / ৬০২
পর্ব-২ শীর্ষ সন্ত্রাসী প্যাডির অন্তরঙ্গ বান্ধবী ছিলো মেহেরপুরের আলোচিত রুপা মনি

মোঃ আতাউর রহমান, মেহেরপুরঃ ২০১৫ সাল থেকে ২০২০ সাল এই ৫ বছরে মেহেরপুরের নিলুফার ইয়াসমিন রুপা ওরফে রুপা অঢেল অর্থ সম্পদ বিলাসবহুল জীবন যাপন শুরু করে। সবচেয়ে কাছের অন্তরঙ্গ বন্ধু নামে খ্যাত কথিত স্বামী শীর্ষ সন্ত্রাসী প্রফেশনাল কিলার ফয়সাল ওরফে প্যাডি গাংনিতে নানার বাড়িতে থাকা কালিন রুপার সাথে অবৈধ সম্পর্ক তৈরী হয়। সে প্যাডির হাত ধরেই অনৈতিক এবং বিপথগামী হয়। এই শীর্ষ সন্ত্রাসী ফয়সাল ওরফে প্যাডি তার খালাতো ভাইকে ঢাকায় খুন করে টুকরো টুকরো করে ল্যাগেজে লুকিয়ে রাখে। সেই সময় ওর সাথে ছিল কথিত বৌ রুপা।

পুলিশ তাকে গ্রেফতার করলেও কৌশলে পালিয়ে যায় রুপা। পরে প্যাডি ধরা পড়ে। ওই মামলায় রুপাকে পুলিশ রিমান্ডে নেয়। কিন্তু রুপা রহস্যজনক ভাবে বেঁচে যায়। রুপা প্যাডিকে বিভিন্ন জায়গায় স্বামী বলে পরিচয় দিত। মেহেরপুরের গাংনীর ইটভাটা ব্যবসায়ী বদী খুন হয় সেখানেও রুপাকে পুলিশ সন্দেহ করে কয়েকবার তাকে রিমান্ডে নেয় এবং এক সময় অনেক মানুষের কাছে ভয়-ভীতি প্রদর্শন ও ব্ল্যাকমেইলিংয়ের মাধ্যমে টাকা আদায় করত তারা। মোটর সাইকেল ছিনতাই এর সাথে জড়িত ছিল শীর্ষ সন্ত্রাসী প্যাডি এখনো যোগাযোগ অব্যাহত আছে রুপার সাথে। ঢাকার আন্ডারওয়ার্ল্ডের অনেক সন্ত্রাসী মাঝে মাঝে রুপার  বাড়িতে মেহেরপুর অবস্থান করে বলে জানা যায়।

বর্তমানে মানিক টাওয়ার ব্যবসায়ী জিরো ফিগারের মালিক সেন্টুর সাথে রুপার অন্তরঙ্গ সম্পর্ক আছে বলে জানা যায়। মেহেরপুর ডিসি অফিসের চাকুরীজীবী রফিকের সাথেও রুপার রয়েছে দহরম-মহরম সম্পর্ক। রফিকের মাধ্যমে রুপা বিভিন্ন জায়গায় মেয়ে সরবরাহ। করত এমনকি সে নিজেও তাদের সাথে রাত্রি যাপন করত। ১৯৯৮ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত বাসস্ট্যান্ডে ভাড়া থাকতো রুপা। সেখানে অনৈতিক কাজের জন্য এলাকাবাসী রুপাকে তাড়িয়ে দেয়।

অভিযোগ আছে রুপা অনেক পরিবার ভাঙার কারণ। সে মেহেরপুরে অনেক উঠতি বয়সী যুবকদের নষ্ট করছে। রুপা নিজেকে কখনো অধ্যক্ষ, কখনো সেলিব্রেটি, কখনো সংগীত শিল্পী, কখনো কবি হিসাবে আবার কখনো সাংবাদিক, কখনো বিশিষ্ট সমাজ সেবক হিসাবে পরিচয় দেওয়ার চেষ্টা করে। রুপা ভুয়া নজরুল সংগীত শিল্পী হিসেবে ভারতে গিয়ে অ্যাওয়ার্ড নিয়ে আসে অথচ শিল্পী না হয়ে কি ভাবে অ্যাওয়ার্ড পেল এ প্রশ্ন উঠে আসছে বর্তমানে।

রুপার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের পর থেকে তার দৌড়ে ঝাপ শুরু হয়েছে। নিজেকে বাঁচাতে রুপা বর্তমানে অনেক সাংবাদিক ও প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রিয় পাঠক সাথে থাকুন তথ্য দিন বিস্তারিত আগামী তৃতীয় পর্বে) চলবে।