• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৩২ পূর্বাহ্ন

নড়াইলের নড়াগাতীতে কোয়াক ডাক্তারের পরিচালনায় দেদারছে চলছে ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক ব্যবসা!


প্রকাশের সময় : জুন ৯, ২০২২, ১:৩১ অপরাহ্ন / ১০৬
নড়াইলের নড়াগাতীতে কোয়াক ডাক্তারের পরিচালনায় দেদারছে চলছে ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক ব্যবসা!

মোঃ হাচিবুর রহমান, নড়াইলঃ নড়াইলের কালিয়া উপজেলার নড়াগাতী থানার পহরডাঙ্গা ইউনিয়নের পাখীমারা গ্রামের প্রধান সড়কের মোড়ে ডাঃ প্রনব বাগচি নামে এক কোয়াক ডাক্তারের বিরুদ্ধে সুরক্ষা ডায়াগনষ্টিক এন্ড ক্লিনিক নামে লাইসেন্স বিহীন ব্যবসা পরিচালনার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ০৮ জুন (বুধবার) দুপুরে সরেজমিনে গেলে জানা যায়, কালিয়া উপজেলায় ডায়াগনষ্টিক সেন্টারগুলোর তালিকায় ওই প্রতিষ্ঠানের নাম নেই। এলাকার প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে অবৈধভাবে চালিয়ে যাচ্ছে এ ব্যবসা। এছাড়া হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে নিজের নামের আগে ডাক্তার লিখে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারনা করে আসছেন তিনি। জানা যায় বাগেরহাটের চুনখোলায় ওই ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার শুধু ’সি’ ক্যাটাগরীর ডায়াগনষ্টিকের লাইসেন্স নিয়ে পাশাপশি ক্লিনিকের ব্যবসাও করতো। ওই লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ২০২১ সালের ২৮ ডিসেম্বর রিনিউ করার জন্য কাগজপত্র সাবমিট করেছেন। সেই সাবমিট করা কাগজের অনুলিপি দেয়ালে টাঙ্গিয়ে কালিয়া উপজেলার পাখিমারা গ্রামে নিজ বাড়ীতে এটা স্থানান্তর করেছেন কথিত ডাক্তার প্রনব বাগচি। গ্রামের সহজ সরল মানুষকে বোকা বানিয়ে এবং সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে চালিয়ে যাচ্ছেন তার অপচিকিৎসা।

অভিযুক্ত ওই ডাক্তারের ঘনিষ্ট আত্মীয় দিলিপ কুমার বিশ্বাস সাংবাদিকদের হুমকির সুরে নিজেকে স্বাস্থ্য পরিদর্শক ইনচার্জ হিসেবে তিনি চাকুরী করতেন এখন পিআরএলে আছেন এবং তিনি কালিয়ায় ২৯ বছর চাকুরী করেছেন পরিচয় দিয়ে নিউজ করতে নিষেধ করেন। বাগেরহাটের লাইসেন্সে কালিয়ায় ব্যবসা করা যাবে কিনা প্রশ্নে উত্তরে ওই পরিদর্শক বলেন যাবে। কোন আইনে তিনি এটা পেয়েছেন এর কোম সদুত্তর তিনি দিতে পারেন নি। পরিশেষে তিনি যা পরেন করেন বলে হুমকি দিয়ে ফোনটি কেটে দেন।

সুরক্ষা ডায়াগনষ্টিকের মালিক প্রনব বাগচির কাছে কাগজপত্র চাইলে তিনি সাংবাদিকদের ওপর তেড়ে আসেন এবং বলেন, সিভিলসার্জনকে নিয়ে আসলে কাগজ দেখাবো বলে চলে যান। এদিকে একই দিনে সন্ধা ৬ টা ২১ মিনিটে কথিত ডাঃ প্রনব বাগচি তার ব্যবহৃত ০১৬১৩৪২৫৬০৯ নম্বর থেকে জাতীয় দৈনিক সকালের সময়, আঞ্চলিক দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার কালিয়া প্রতিনিধি ও চ্যানেল এস টেলিভিশনের কালিয়া প্রতিনিধিকে ফোন করে অকথ্য ভাষায় কথাবার্তা বলেন এবং ওই এলাকায় ঢুকলে দেখে নেবেন বলে হুমকি দেন। এ বিষয়ে থানায় জিডি করার প্রস্তুতি চলছে।

এ বিষয়ে কালিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কাজল মল্লিক জানান, ৯ জুন সকালে তিনি ওই ডায়াগনস্টিক ও ক্লিনিকে সরেজমিনে গিয়ে কাগজপত্র আপডেট না করে ব্যবসা পরিচালনার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করছেন।