• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১৫ অপরাহ্ন

নড়াইলেঅর্থ ও জমি আত্মসাতসহ হত্যার হুমকি! মেয়ে-জামাইসহ পাঁচ জনকে আসামী করে বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের


প্রকাশের সময় : অগাস্ট ২, ২০২১, ১:১৯ অপরাহ্ন / ১০৮
নড়াইলেঅর্থ ও জমি আত্মসাতসহ হত্যার হুমকি! মেয়ে-জামাইসহ পাঁচ জনকে আসামী করে বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের

মোঃ জিহাদুল ইসলাম, কালিয়া,নড়াইলঃ নড়াইলের নড়াগাতী থানার মুলশ্রী গ্রামের হেকমত সিকদার (৭৮) নামে এক বয়োবৃদ্ধ জমি জালিয়াতি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে নিজে বাদী হয়ে ঢাকার বিজ্ঞ সি.এম.এম আদালতে আপন মেয়ে-জামাতা ও তিন নাতী-নাতনীসহ পাঁচ জনকে আসামী করে একটি পিটিশন মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নম্বর ৫৩/২২১/২০২১ এবং দঃ বিধি ৪৬৭/৪৬৮/৪৭১/ ৪০৬/ ৪২০/ ৩২৩/৫০৬ ধারা মোতাবেক ২৩ জুন/২০২১ মামলাটি দায়ের করেন। হেকমত সিকদার ওই গ্রামের জয়নাল সিকদারের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, আসামীরা বর্তমানে ঢাকা জেলার গেন্ডারিয়া থানার নারিন্দায় ১৯/৪-এ ঠিকানায় বসবাস করে। ১ নং আসামী মৃত তাহের মিয়ার ছেলে ও বাদীর জামাতা মোঃ সিরাজ (৫৫), ২ নং আসামী বাদীর মেয়ে রাশিদা বেগম, ৩ নং আসামী মোঃ সিরাজের কন্যা শিম্পা আকতার (৩৫), ৪ ও ৫ নং আসামী মোঃ সিরাজের দুই পুত্র মেহেদী (২৮) ও লাদেন (২১) সকলের স্থায়ী ঠিকানা নড়াগাতী থানার মুলশ্রী গ্রাম বলে বিবরণে জানা যায়।

মামলায় বাদীর লিখিত বক্তব্যে জানা যায়, তার জামাতা মোঃ সিরাজ দীর্ঘ ১২ বছর যাবৎ দুবাই প্রবাসী হিসেবে আসা যাওয়া করে থাকে। সিরাজ দুবাইয়ের আসান বলদিয়ায় সিকিউরিটি গার্ডের চাকুরী করে। এদিকে বাদী ছেলে রাজু সিকদারও দুবাই প্রবাসী। সুসম্পর্ক থাকাকালে সিরাজ দুবাইতে সরকারি চাকুরী দেওয়ার নাম করে রাজুর কাছ থেকে ২ লক্ষ টাকা নেয়। বাদীর কন্যা রাশিদা দম্পতি বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রয়োজন দেখিয়ে বাদীর কাছ থেকে ১০ লক্ষ ৪৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এ ছাড়া অতি গোপনে বাদীর অজান্তে তার স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ২০১৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারী তারিখে বাদীর রেকর্ডিও সম্পত্তি থেকে সাড়ে ১১ শতক জমি হেবা দলিল করে নেয়। অবশেষে ২০২১ সালের ৭ জুন বাদী গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার মেয়ে- জামাইয়ের জালিয়াতি জানতে পেরে তাদের বর্তমান ঠিকানায় গেলে বাদীকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজসহ প্রান নাশের হুমকি দেয়। যার অডিও রেকর্ড বাদী সংগ্রহে রেখেছেন বলে মামলার বিবরণে উল্লেখ করেছেন। দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকার সুবাধে সিরাজ স্থানীয়সহ অনেক লোককে বিদেশে নেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে টাকা আত্মসাৎ করেছে। এছাড়া সিরাজ মানব পাচারের সাথেও যুক্ত আছে এবং অভিযুক্ত অন্য আসামীরা তার ওই সকল কুকমের্র সহযোগী হিসাবে কাজ করে বলে মামলা সূত্রে জানা যায়।
এ বিষয়ে বাদী হেকমত সিকদার বিজ্ঞ আদালতে প্রদত্ত অভিযোগ আমলে নিয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের আর্জি জানিয়েছেন।