• ঢাকা
  • সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৬:৩৯ পূর্বাহ্ন

নিয়মের তোয়াক্কা না করেই মধ্যরাতে নারী নিয়ে ভার্সিটিতে প্রবেশ করলেন দুমকি উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী মাল্টা কাউসার


প্রকাশের সময় : জুন ৬, ২০২৪, ১২:৩৯ অপরাহ্ন / ১২
নিয়মের তোয়াক্কা না করেই মধ্যরাতে নারী নিয়ে ভার্সিটিতে প্রবেশ করলেন দুমকি উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী মাল্টা কাউসার

নিজস্ব প্রতিবেদক, পটুয়াখালীঃ পটুয়াখালীর দুমকী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এবারে সবচেয়ে আলোচিত-সমালোচিত নাম চেয়ারম্যান প্রার্থী মাল্টা প্রবাসী কাওসার আমিন হাওলাদার ওরফে মাল্টা কাওসার। শুরুতেই উপজেলায় রোগীদের সেবায় জন্য বিনামূল্যে অ্যাম্বুলেন্স সরবরাহ থেকে শুরু করে, এলাকার মানুষের মাঝে সাড়া ফেলেছিলেন। সুখে-অসুখে, বিপদে-আপদে দু’হাতে টাকা বিলানোর মাধ্যমে গরীব-অসহায় মানুষের কাছে পান জনদরদীর তোকমা।

কিন্তু সময় যতো বাড়ছে, মাল্টা কাওসারের একের পর এক অপকর্ম প্রকাশিত হচ্ছে। বিদেশে পাঠানোর নাম করে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে টাকা নিয়ে পরবর্তীতে না পাঠিয়ে উল্টো হুমকী-ধামকী এবং মিথ্যা মামলায় ভূক্তভোগীদের হয়রানীর রেশ কাটতে না কাটতে প্রধান সহযোগী শফিকের মাদক সংশ্লিষ্টতায় গ্রেফতার যেন ‘জন দরদী’ মুখোশের আড়ালে ভয়ংকর এক কুতসিৎ কাওসারের সাথে পরিচিত হচ্ছে দুমকীর মানুষ।

এবারে গভীর রাতে ধরা পড়লেন নারী নিয়ে। আর এতেই ছি! ছি! করছে সবাই। ঘটনাটি ২ জুন রবিবার রাতের। পুরো ঘটনার কিছু অংশ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ওই ফুটেজে দেখা যায়, মাল্টা কাওসার দুমকীতে অবস্থিত পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নির্জন পরিবেশে একজন নারী নিয়ে ঘোরাঘুরি করছেন। হেটেঁ আসার এক পর্যায়ে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা চ্যালেঞ্জ করেন। তখন মাল্টা কাওসারকে বিচলিত দেখাচ্ছিল। আনসার সদস্যরা তাদের ছবি তুললে পরবর্তীতে মাল্টা কাওসারের লোকজন এসে মোবাইল কেড়ে নিয়ে সব ডিলিট করে দেন। এসময় আনসার সদস্যদের সাথে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে।

এ বিষয়ে বিশ্বদ্যিালয়ের প্রক্টর ডক্টর জাহিদ জানান, বিষয়টি আমি জেনে আমার উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার আরিফুর রহমান জুয়েল জানান, প্রতিটা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা সংরক্ষিত এলাকা থাকলেও পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঝখান দিয়ে একটা সড়ক থাকায় বহিরাগতরাও ডুকে পড়ে। এগুলো বন্ধ করতে পারছিনা।

দুমকী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সফিউর রহমান জানান, তিনি ব্যক্তিগতভাবে ভিডিও দেখেছেন তবে কেউ আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেবেন।

এ বিষয়ে প্রার্থী মাল্টা কাওসারের কাছে জানতে চাইলে তার মোবাইলে ফোন দিলেও ফোন রিসিভ করেনি সে।

এদিকে একজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর এমন নৈতিক অবক্ষয়ের জন্য ধিক্কার দিচ্ছেন সাধারণ মানুষ।