• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৪৬ পূর্বাহ্ন

নারায়ণগঞ্জে ভাইয়ের ব্যবসা দখলের অপচেষ্টায় কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৩১, ২০২০, ১০:৩৮ অপরাহ্ন / ২১৯
নারায়ণগঞ্জে ভাইয়ের ব্যবসা দখলের অপচেষ্টায় কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নানা কর্মকান্ডের কারণে ইতিমধ্যেই বেশ বিতর্কিত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা। এবার এই কাউন্সিলরের বিরুদ্ধেআপন বড় ভাইয়ের ব্যবসা জোড়পূর্বক দখলের অভিযোগ উঠেছে। তার বড় ভাই খোকন মোল্লা জানান, ক্ষমতার মোহে অন্ধ রুহুল আজ(শনিবার) তার ব্যবসায় একক নিয়ন্ত্রণ নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। শুধু তাই নয়, বিষয়টি নিয়ে বেশি বারাবারি করলে বড় ভাইকে দেখে নেয়ারও হুমকি দিয়েছেন কাউন্সিলর রুহুল আমিন।

খোকন মোল্লা আরও জানান, দীর্ঘ দিন ধরেই কাউন্সিলর রুহুল অমিন মোল্লা তার উপড় শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। প্রথমে বাড়িতে দেয়াল নির্মাণ করে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে, প্রতিবাদ করতে গিয়ে ছোট ভাইয়ের হাতে মারধরের শিকারের পর এবার নিজের ব্যবসায়ও প্রভাব বিস্তার করছে রুহুল আমিন।

তিনি জানান, দীর্ঘ দিন ধরে আমি সিদ্ধিরগঞ্জে সীমা ডাইং থেকে ঝুট নামিয়ে সেগুলো স্থানীয় বাজারে বিক্রি করে আসছিলাম। মূলত সীমা ডাইংয়ের সাথে ভালো সম্পর্কের জেড়েই প্রতিষ্ঠানটি আমাকে এই ব্যবসার সুযোগ করে দেয়। পরবর্তীতে আমি এই ব্যবসায় ছোট ভাই রুহুল আমিন মোল্লাকেও নিয়ে আসি। আজ সেই ভাই আমার ব্যবসা একক নিয়ন্ত্রণে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

খোকন মোল্লা জানান, ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে নিতে রুহুল আমিন তাকে হুমকি ধামকি দিয়ে বলেছে, বলেছে তোরে এমনে মারমু না, না খাওয়াইয়া মারমু।

অভিযোগ রয়েছে কাউন্সিলর নির্বাচনের পূর্বে রুহুল আমিন মোল্লা এলাকায় ফেন্সিডিলের ব্যবসা করতো। এর আগে সিঙ্গাপুরে অর্থপাচারের সাথেও জড়িত ছিলেন রুহুল। বিষয়টি সেই দেশের প্রশাসনের নজরে আসায় এবং তার ব্যাংক একাউন্ট সিজ করে দেয়ার পর সেখান থেকে পালিয়ে আসে সে। বিষয়টি এখনো দুদকে তদন্তাধীন রয়েছে। সিঙ্গাপুরে রুহুল আমিন মোল্লার একটি বাড়ি রয়েছে বলেও জানান খোকন মোল্লা।

তিনি আরো জানান, ২০১১ সালে নাসিক নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর ৮নং ওয়ার্ডে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে রুহুল আমিন মোল্লা। আড়ালে সকলেই তাকে নব্য নূর হোসেন (৭ খুন মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত আসামি) বলে ডাকে। সিদ্ধিরগঞ্জে রুহুল আমিনের যে ভবন রয়েছে, সেখানে সর্ব সাধারণের প্রবেশাধিকার নিষেধ করে ভবনের ছাদে একটি মিনি বার স্থাপন করেছে সে। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন অবগত বলেও অভিযোগ জানান তিনি।

খোকন মোল্লা আরো জানান, যেখানে আমি তার (কাউন্সিলর রুহুল আমিন) আপন ভাই হওয়া সত্বেও তার নির্যাতন থেকে রেহাই পাচ্ছি না, সেখানে এলাকাবাসী কতোটা নিরাপদ! এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভুগী খোকন মোল্লা।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ভাইয়ের সাথে দ্বন্দ্বের জেড়ে দেয়াল নির্মাণ করে বড় ভাই খোকন মোল্লাকে বাড়ির ভিতর প্রবেশের পথ বন্ধ করে দিয়েছে কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা।