• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:০৩ পূর্বাহ্ন

নাবালক কন্যাকে ফিরে পেতে পিতার সংবাদ সম্মেলন


প্রকাশের সময় : জুন ৬, ২০২২, ১০:৫২ অপরাহ্ন / ১০৩
নাবালক কন্যাকে ফিরে পেতে পিতার সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী, নাবালিকা মেয়েকে অপহরনের পর বিয়ে করে পরিবারকে নানা রকম হুমকির প্রতিবাদে গত ৫ জুন জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন ভুক্তভোগী মোঃ সালাউদ্দিন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তারা অতি দারিদ্র পরিবারের সন্তান। দীর্ঘদিন যাবত পুরান ঢাকার আলাউদ্দিন রোডে বসবাস করেন। পেশায় সালাউদ্দিন একজন গাড়ী চালক। দীর্ঘ ১৭ বছর যাবত কাজী আলাউদ্দিন রোডের আবুল হোসেন ভান্ডারি নামক একজন ব্যবসায়ীর গাড়ী চালক হিসেবে চাকুরী করে জীবিকা নির্বাহ করেন তিনি। তার মালিক আবুল হোসেন ভান্ডারির কেরানীগঞ্জের একটি আবাসিক ভবন রয়েছে। চাকুরীর সূত্রে সালাউদ্দিন ও তার পরিবারের সকল সদস্যকে মালিক খুব ভালোবাসতেন এবং নিজের সন্তানের মতো আদর ¯েœহ করতেন। সালাউদ্দিনের মেয়ে সাফা (১৫) আবুল হোসেনকে আপন দাদার মতো সম্মান করতো। সময়ে অসময়ে তার ছোট খাটো কাজকর্ম করে দিতো। হঠাৎ আবুল হোসেন ভান্ডারীর ছোট ছেলে আনোয়ার হোসেন রিয়েল (৩৫) সালাউদ্দিনের স্ত্রী ও মেয়েকে নিয়ে নানারকম মিথ্যাচার ও অপপ্রচার করতে থাকে। তার পিতার চরিত্র নিয়ে নানা কথা রটাতে থাকে। এক পর্যায়ে আনোয়ার হোসেন রিয়েল তাদের আত্মীয় সম্পর্কের কর্মচারী হৃদয়ের সাথে সালাউদ্দিনের মেয়ে সাফাকে জোরপূর্বক বিয়ে দেয়। প্রতিবাদ করলে রিয়াদ তার সহযোগীসহ আমাদেরকে মারধর করে। ফলে আমরা তাদের বাড়ী থেকে অন্যত্র ভাড়া বাড়িতে চলে যাই। পরবর্তীতে আনোয়ার হোসেন রিয়েল ও তার বন্ধু হাসিব মিলে তাদের পরিচিত র‌্যাব সদস্যকে দিয়ে সলাউদ্দিনকে গ্রেফতার করে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে একটি মিথ্যা মামলার মাধ্যমে গ্রেফতার দেখিয়ে জেলহাজতে প্রেরণ করে। যার মামলা নং ৭৫/১১০৩। তারিখ: ২৮/১২/২০২১। সালাউদ্দিন জেলে থাকার সময়ে তার মেয়ে সাফা পালিয়ে এসে তার স্বামীকে তালাক নামা পাঠিয়ে দেয়। এরপর থেকে রিয়েল ও তার সহযোগীরা সালাউদ্দিন ও তার পরিবারকে নানারকম ভয়-ভীতি দেখাতে থাকে। এর ২-৩ দিন পর র‌্যাব সালাউদ্দিনের ভাড়াটিয়া বাসা ঘেরাও করে তার স্ত্রীকে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। সালাউদ্দিন তার স্ত্রীকে জামিন করানোর জন্য কোট কাচারীতে বেশিরভাগ সময় কাটায়। এসময় তার মেয়ে সাফাকে পুনরায় সন্ত্রাসীরা অপহরন করে নিয়ে যায়। মেয়ে সাফা এখন কোথায় আছে, কি অবস্থায় আছে কিছুই যানে না পিতা সালাউদ্দিন ও তার পরিবার। সালাউদ্দিনের স্ত্রীকে জামিন করানোর জন্য আসিফ একজন আইনজীবী নিয়োগ করে। সেই আইনজীবী সালাউদ্দিনের স্ত্রীকে জামিন না করিয়ে নানা অজুহাতে সময় ক্ষেপন করছে। এদিকে আনোয়ার হোসেন রিয়েল সালাউদ্দিনের পরিবারকে হত্যার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।

এই পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পেতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন ভুক্তভোগী সালাউদ্দিন। সংবাদ সম্মেলনের সময় সালাউদ্দিনের মা রানু বেগম, বড় বোন জেসমিন আক্তার, ছোট বোন নাসরিন আক্তার ও ছোট ভাই শাহাবুদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।