মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০৯:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
প্রাণিসম্পদ খাতের বিকাশে সার্কভুক্ত দেশগুলোকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে:মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী সহনশীল খাদ্য ব্যবস্থা গড়তে সম্মিলিত উদ্যোগ ও অংশীদারিত্ব প্রয়োজন :খাদ্যমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নযাত্রায় সজীব ওয়াজেদ জয় শীর্ষক আলোচনায় বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ডিজিটাল নিরাপত্তা : ‘অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ তথ্যমন্ত্রীর প্রত্যাখ্যান সারা দেশে কঠোর বিধিনিষেধের ৫ম দিন সড়কে গাড়ির চাপ বাড়িতে কাঁদছে ৬ মাসের শিশু,এনজিওর মামলায় থানায় মা সংঘবদ্ধ ধর্ষণের মূলহোতা সোহাগ দেওয়ান যেন আরেক রিজেন্ট সাহেদ করোনা সংক্রমণ বাড়ছে, করণীয় নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক আজ বিতর্কিত হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজ প্রতিষ্ঠানে কর্মী নিয়োগেও টাকা নিয়েছেন আজ সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন

নাটোরের গুরুদাসপুরে গৃহবধূকে নৃশংস ভাবে হত্যা, স্বামীকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৮ জুলাই, ২০২১
  • ৪৩ Time View

মনিরুজ্জামান অপূর্ব/ বেলাল দেওয়ান,ঢাকা :নাটোরের গুরুদাসপুরে বিয়াঘাট ইউনিয়নের বিল হরিবাড়ী এলাকায় স্ত্রী সুর্বণা খাতুনকে (২১) হত্যা করে স্বামী মোঃ সাগর হোসেন (২৫) পিতা: মোঃ জামাল হোসেন, গ্রাম : বিল হরিবাড়ী (হরদমা), থানা : গুরুদাসপুর, নাটোর পালিয়ে যায়। জানা যায় যে, তিন বছর আগে আসামীর সাথে ভিকটিমের বিবাহ হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য ভিকটিম শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতিত হয়ে আসছিলো। গত ১৩ জুলাই ২০২১ তারিখ রাতে আসামী ভিকটিমের মুখে কাপড় গুজে লাঠি দিয়ে নৃশংসভাবে মারধোর করে। মারধোরের এক পর্যায়ে ভিকটিম মৃত্যুবরণ করে। পরবর্তীতে ভিকটিম গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে চালানোর জন্য তাকে ফাঁসিতে ঝুলানো হয়। এই ঘটনার পর সুর্বণার বাবা হাফিজুল সরদার বাদী হয়ে নাটোর জেলার গুরুদাসপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১২/১৯৩, তারিখ : ১৫/০৭/২০২১, ধারা: ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী ২০০৩) এর ১১(ক)/৩০।

আজ সিআইডি সদরদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে সিআইডি’র বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্ত ধর বলেন, সাগর তার বাবার সাথে কৃষি কাজ করতো। সাগরের বাবা নৌকায় করে খর বিক্রি করে। সাগরের ৭ বছর বয়সের ছোট ভাই আছে। ঘটনার পরপর সাগরের মা সাবিনা বেগমকে গ্রেফতার কর হয়েছে।
ঘটনাটি একাধিক জাতীয় পত্রিকা ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় আলোচিত হত্যাকান্ড হিসেবে প্রকাশিত হলে সিআইডি ছায়া তদন্ত আরম্ভ করে। সিআইডি’র বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর এর প্রত্যক্ষ দিক-নির্দেশনায় এলআইসি’র একাধিক বিশেষ দল ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষন ও নিবিড় পর্যবেক্ষনের মাধ্যমে আসামী’র আত্মগোপনে থাকার সম্ভাব্য সকল স্থানে অভিযান পরিচালনা করে। অবশেষে সিআইডি’র একটি চৌকস দল এই নৃশংস ও চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার প্রধান আসামী মোঃ সাগর হোসেনকে কুমিল্লার মিয়ার বাজার হতে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়।
গ্রেফতারকৃত আসামী প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে। হত্যাকান্ডের পর আসামীর চির পলাতক হবার সম্ভাবনা ছিলো। অতি অল্প সময়ে ঘটনার রহস্য উন্মোচন ও পলাতক আসামী গ্রেফতার সিআইডি তথা বাংলাদেশ পুলিশের একটি উল্লেখযোগ্য অর্জন।।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 ajkerbd24.com
Design & Development By: Atozithost
Tuhin