• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১০:২৫ অপরাহ্ন

নদী ও খাল খনন করে মিষ্টি পানির প্রবাহ সৃষ্টি করা এবং মাছ চাষের সাথে ধান চাষ বাধ্যতামূলক করতে হবে : এমপি রশিদুজ্জামান


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২৫, ২০২৪, ৮:২০ পূর্বাহ্ন / ২০
নদী ও খাল খনন করে মিষ্টি পানির প্রবাহ সৃষ্টি করা এবং মাছ চাষের সাথে ধান চাষ বাধ্যতামূলক করতে হবে : এমপি রশিদুজ্জামান

মানছুর রহমান জাহিদঃ খুলনা-৬ কয়রা-পাইকগাছা আসনের সংসদ সদস্য মোঃ রশীদুজ্জামান বলেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীনের পর উপকুলীয় এলাকাকে নদীর লবণ পানি মুক্ত করার জন্য ওয়াপ্দার বাঁধ নির্মান করার কাজ এই পাইকগাছা থেকে উদ্বোধন করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু নির্দেশে কয়রা-পাইকগাছাসহ উপকূলীয় অঞ্চলে নদীর পাড়ে নির্মিত হয় ওয়াপদার বাঁধ। কৃষকরা হন লবণ পানি মুক্ত। চাষবাদে এলাকা হয় সমৃদ্ধশালী। কৃষকদের ছিল গোলা ভরা ধান, পুকুর ভরা মাছ, গোয়াল ভরা গবাদি পশু। কিন্তু ৮০ দশকে বাইরে থেকে কিছু প্রভাবশালী ঘের মালিকরা সেই মজবুদ বাঁধ কেটে ওয়াপ্দা অভ্যন্তরে লবন পানি প্রবেশ করিয়ে চিংড়ি চাষ শুরু করে। লবন পানির কারনে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হয়। কৃষকের গোলাভরা ধান ও পুকুর ভরা মাছ, গোয়াল ভরা গরু বিলুপ্তি হয়। লবনক্ততার কারনে এলকার মানুষ হয় কর্মহীন, হাজার হাজার মানুষ বসতভিটা ছেড়ে অন্য এলাকায় চলে যায়। পেশা বদল করে অন্য পেশায় চলে যেতে বাধ্য হন এলাকার মানুষ। তিনি আরো বলেন আমি মহান জাতীয় সাংসদে লবন পানির বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট লবন পানির বিরুদ্ধে একটা আইন প্রনয়নের জন্য অনুরোধ করছি। অচিরেই কয়রা-পাইকগাছা লবন পানি মুক্ত হবে। যতদিন লবন পানি মুক্ত না হয় ততদিন পর্যন্ত ধান ও মাছ চাষ বাধ্যতামুলক করতে নির্দেশনা দেন। বন্ধ নদী ও সরকারি খাস খাল খনন করে মিষ্টি পানির প্রবাহ সৃষ্টি করা হবে। তিনি পাইকগাছার লস্কর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে পরিষদ চত্তরে সুধী সমাবেশে উপরুক্ত বক্তব্য রাখেন।

শনিবার সকালে উপজেলার লস্কর ইউনিয়ন পরিষদের বারবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান কে এম আরিফুজ্জামান তুহিনের সভাপতিত্বে ও যুবলীগ নেতা শহীদুল্লাহ্ কায়সারের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার ইকবাল মন্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুল হাসান টিপু, সহ-সভাপতি সমিরণ সাধু, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আনন্দ মোহন বিশ্বাস, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কৃষ্ণ পদ মন্ডল, বিজন বিহারি সরকার, আওয়ামী লীগ নেতা বিভূতি ভূষন ঢালী, মুনসুর আলী গাজী, আব্দুল কুদ্দুস সানা, অহেদুজ্জামান মোড়ল, আব্দুল ওহাব বাবলু, আজিজুর রহমান গাজী, আব্দুল হাই, জহুরুল হক, নুরুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান, অনিতা রানী মন্ডল, পার্থ প্রতিম চক্রবর্তী, ফাইমিন সরদার, আরিফ আহম্মেদ জয়সহ অনেকে।