• ঢাকা
  • সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:০৯ অপরাহ্ন

দোয়ারাবাজারে উদ্বোধনের অপেক্ষায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ১২৫ টি ঘর


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ২৪, ২০২২, ১১:৩৫ অপরাহ্ন / ১১৫
দোয়ারাবাজারে উদ্বোধনের অপেক্ষায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ১২৫ টি ঘর

এনামুল কবির মুন্নাঃ সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে উদ্বোধনের অপেক্ষায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত তৃতীয় পর্যায়ের ২৮০টি ঘরের মধ্যে ১২৫ টি ঘর। আগামী ২৬শে এপ্রিল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তৃতীয় ধাপে নির্মিত ঘরগুলো উদ্বোধন করবেন। জমিসহ আধা-পাকা ঘর পেয়ে খুশি ভূমিহীন গৃহহীন পরিবারগুলো।

দোয়ারাবাজার উপজেলার ভিন্ন ইউনিয়নে ১২৫ আশ্রয়ণ প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর আশ্রয় পাওয়া পরিবারগুলো জানান, তারা কোন দিন ভাবেননি মাথা গোঁজার মতো নিজেদের একটি ঠিকানা হবে। আজ আমরা অসহায় পরিবারগুলো প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘরে থাকি, আর আমাদের কোন কষ্ট নেই। আগে খুব কষ্টে ছিলাম। বর্ষায় বৃষ্টির পানিতে খুব কষ্ট করেছি। এখন খুব আরামে থাকি। ঘর বরাদ্দ পেয়ে আমরা খুব খুশি। প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা নামাজ পড়ে দোয়া করি শেখ হাসিনার জন্য। আমাগোরে বিনা পয়সায় সুন্দর ঘর করে দিছেন প্রধানমন্ত্রী। এখন আমাদের কোন চিন্তা নাই ।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধান মন্ত্রীর উপহার হিসেবে দেয়ারাবাজারে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে ২শত ৮০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য নির্মিত হয়েছে আধা-পাকা টিনের ঘর । প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় সরকারী খাস জমিতে এসব ঘর নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উপহার নির্মাণাধীন ঘরগুলো ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে বিনা মূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উপহার (ঘর) পেয়ে বসবাস করছেন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার।

দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাংশু কুমার সিংহ অক্লান্ত পরিশ্রম করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঘরগুলো নির্মাণ করে উপকার ভোগীদের মাঝে বুঝিয়ে দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘরগুলোতে বসবাস করছেন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মানুষ। ঘর পেয়ে খুব খুশি উপকার ভোগীরা। তৃতীয় ধাপেও নির্মিত আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরগুলো এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়।

দোয়ারাবাজার উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আম্বিয়া আহমেদ জানান, প্রতিটি পরিবারের জন্য দুই শতাংশ খাস জমি দিয়ে ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। তৃতীয় ধাপে মোট ২৮০টি ঘর নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে ১২৫টি ঘর সম্পূর্ণ করা হয়েছে। নির্মিত ১২৫টি ঘর এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়। নির্মিত ঘরগুলো বাথরুম ,গোসলখানা, বারান্দাসহ ২ কক্ষ বিশিষ্ট প্রতিটি আধা-পাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ২ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকা।

দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাংশু কুমার সিংহ বলেন, তৃতীয় ধাপে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ২৮০টি ঘরের মধ্যে ১২৫ টি ঘর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। ঘরগুলো উদ্বোধনের জন্য প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আগামী ২৬শে এপ্রিল নির্মিত ঘরগুলো উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধন শেষে আমরা উপকারভোগীদের জমির কবুলত রেজিঃসহ নির্মিত ঘরগুলো হস্তান্তর করব।