• ঢাকা
  • সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৬:৫৫ পূর্বাহ্ন

দেবরের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা প্রবাসীর স্ত্রী, অতঃপর…


প্রকাশের সময় : মে ৮, ২০২৩, ৪:৫৪ অপরাহ্ন / ৯৮
দেবরের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা প্রবাসীর স্ত্রী, অতঃপর…

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার দেবরের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন প্রবাসীর স্ত্রী। প্রায় দুই মাস কন্যা সন্তান প্রসব করেন ওই প্রবাসীর স্ত্রী। শনিবার রাত ২টার দিকে মারা যায় শিশুটি। ওই প্রবাসীর স্ত্রী তার মায়ের দাবি, শিশুটি ঘুমের মধ্যে মারা যায়। এর আগে অবৈধ এ সন্তানের জন্য দেবর হাফেজ মেহেদী হাসানকে দায়ী করে চাঁদপুরের আদালতে মামলা করেছেন প্রবাসীর স্ত্রী।

জানা যায়, প্রায় ৫ বছর আগে রীনি আক্তারের সঙ্গে আজিজুল হকের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর প্রবাসে চলে যান আজিজুল। এ সুযোগে আজিজুলের ছোট ভাই হাফেজ মেহেদী হাসান ভাবি রীনি সঙ্গে কৌশলে ভাব জমায়। একপর্যায়ে তারা অবৈধ সর্ম্পকে লিপ্ত হয়। এতে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন প্রবাসীর স্ত্রী। বিষয়টি জানাজানি হলে আজিজুল হক দেশে চলে আসেন। এরপর গর্ভপাত ঘটাতে চাইলেও সন্তান ধারণের প্রায় ৬ মাস হয়ে যাওয়ায় কোনো চিকিৎসক এতে রাজি হননি। এদিকে, গণ্যমান্য ব্যক্তিরা সামাজিক রীতি-নীতি ও ইসলামী শরিয়া মোতাবেক এর ফয়শালা করার উদ্যোগ নিলে আজিজুল হক ও তার বাবা গোলাম মাওলা বিষয়টি আমলে না নিয়ে রীনিকে অনত্র্য নিয়ে লুকিয়ে রাখেন। প্রায় তিন মাস পূর্বে স্ত্রীকে কোথাও কোনো অভিযোগ না করার শর্ত আরোপ করে প্রবাসে চলে যান আজিজুল। এতে অসহায় হয়ে পড়েন রীনি। এরপর সেখান থেকে থেকে পালিয়ে বাবার বাড়িতে গিয়ে দেবরের নামে আদালতে মামলা করেন রীনি।

বর্তমানে মামলাটির তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করছেন কচুয়া থানার এসআই মামুনুর রশিদ সরকার। এরই মধ্যে প্রায় দুই মাস আগে অবৈধ কন্যা সন্তান প্রসব করেন রীনি। গত শনিবার রাত ২টার দিকে শিশুটি মারা যায়। রীনি ও তার মায়ের দাবি, ঘুমের মধ্যে মারা যায় শিশুটি।

কচুয়া থানার ওসি ইব্রাহিম খলিল জানান, মৃত শিশুটিকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে শিশুটির ডিএনএ পরীক্ষা করা হবে।