• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১৭ পূর্বাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে দিনমজুর পরিবারের উপর হামলায় অধ্যক্ষকে গ্রেফতারের নির্দেশ আদালতের


প্রকাশের সময় : মার্চ ২৯, ২০২৩, ৫:০২ অপরাহ্ন / ৫৮
ঠাকুরগাঁওয়ে দিনমজুর পরিবারের উপর হামলায় অধ্যক্ষকে গ্রেফতারের নির্দেশ আদালতের

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঠাকুরগাঁওঃ ঠাকুরগাঁওয়ে অসহায় একটি দরিদ্র পরিবারের উপর হামলা, মারপিট ও শ্লীলতাহানির অভিযোগে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া ছালেহীয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মজাহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছে আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক আসামী মুজাহারুল ইসলামকে আদালতে অনুপস্থিত পাওয়ায় তাকে গ্রেফতার করার এ আদেশ দেওয়া হয় । বাদী পক্ষের আইনজীবি অ্যাডভোকেট. আব্দুর রহিম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযোগে জানা যায়, গত বছরের ১১মে বিকেলে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ঘনিমহেশপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম নামে একজন দিনমজুরের জমিতে জোরপূর্বক ঘর তোলার চেষ্টা চালায় প্রয়াত ইসাহাক মেম্বারের ছেলে সাইদুর রহমান ওরফে সাহেদ। এতে বাঁধা দেয় দিনমজুর সাইফুল ইসলামের স্ত্রী শাহিনা বেগম ,এবং দুই ভাবি আর্জিনা বেগম ও জাহানারা বেগম। রুহিয়া ছলেহীয়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মজাহারুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত দরিদ্র ওই পরিবারের উপর হামলা চালায়। এতে ওই পরিবারের ৩ জন নারী আহত হয় এবং তাদের শ্লীলতাহানী করা হয়। ৯৯৯ এর সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু জমি দখলকারী গ্রুপটি প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে মামল গ্রহনে টালবাহানা করে পুলিশ।

এ ঘটনায় সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে রুহিয়া ছালেহীয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মজাহারুল ইসলাম, তার ভাই মহিউল ইসলাম সহ ৯ জনকে আসামী করে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রুহিয়া থানার ওসিকে নির্দেশ দেয়।

মামলার তদন্তুকারী কর্মকর্তা এসআই সজল বসাক মজাহারুল ইসলাম ও তার স্ত্রীকে মামলা হতে অব্যাহতি দিয়ে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেন। এতে বাদী সাইফুল ইসলাম সংক্ষুদ্ধ হয়ে আদালতে নারাজি দাখিল করলে বিচারক আসামী মজাহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নিয়ে তাকে আদালতে হাজির হতে সমন জারি করে।

মঙ্গলবার ওই মামলার আসামীদের আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশনা জারি করা হলেও মজাহারুল ইসলাম অজ্ঞাত কারণে আদালতে হাজির হয়নি। ৮ আসামীর ৭ জন আসামী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের প্রার্থনা জানালে আদালতে তাদের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করে। অপর আসামী অধ্যক্ষ মজাহারুল ইসলাম আদালতে অনুপস্থিত থাকায় আদালত তার বিরুেদ্ধ গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে।

এ ব্যাপারে রুহিয়া ছালেহীয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মজাহারুল ইসলাম জানান, আদালতে আজ আমার জমি সংক্রান্ত বিষয়ে মামলার হাজিরা ছিলো। কিন্তু অসুস্থতার কারণে আমি উপস্থিত হতে পারিনি। পরে শুনি আদালত আমার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে।