• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০২:০২ পূর্বাহ্ন

টুঙ্গিপাড়ায় শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ : জামাইসহ আহত-২


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ২৯, ২০২৪, ৬:২৩ অপরাহ্ন /
টুঙ্গিপাড়ায় শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ : জামাইসহ আহত-২

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোপালগঞ্জঃ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার ডুমুরিয়া ইউনিয়নের পার ঝনঝনিয়া পাকুরতিয়া বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী মোঃ নুর-নবী’র (নুহু) ওপর হামলা চালায় কোটালীপাড়া উপজেলার শ্বশুর বাড়ির লোকজন। হামলায় আহত হন জামাই মোঃ নুর-নবী (নুহু) সহ মারামারি ঠেকাতে আসা পাশের কাপড় ব্যবসায়ী খোরশেদ আলম।

ওই এলাকায় সরেজমিনে গেলে জানা যায়, রোববার (২৮ এপ্রিল) বেলা ১১টার সময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কোটালীপাড়ার মাঝবাড়ি এলাকা থেকে এসে হঠাৎ হামলা করে হামলাকারীরা নুহুর দোকানে ঢুকে নুহুকে মারপিট করে দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে টাকা, মোবাইল, ব্যাংকের কার্ড ছিনিয়ে নিয়ে যায়। নুহুর ওপর হামলার কথা শুনে পাশের এক কাপড় ব্যবসায়ী খোরশেদ আলম ঠেকাতে আসলে হামলাকারীরা তার ওপরও হামলা চালায়।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী মোঃ নুর-নবী নুহু বলেন, আজ ২৮/০৪/২৪ ইং তারিখ আনুমানিক ১১ টায় আমার স্ত্রী আমার শ্বশুর বাড়ির লোকজনদের পাকুরতিয়া বাজারে ডেকে এনে আমার ওপর আক্রমণ করে। তারা আমাকে এলোপাথারি ভাবে কিলঘুষি মেরে আমাকে নিলা ফোলা জখম করে আমার পাশের ব্যবসায়ী খোরশে আলম মারপিট ঠেকাতে আসলে আমার শ্বশুর বড়ির লোকজন তাকেও মারপিট করে নিলাফোলা জখম করে। আমি গত ১৭ বছর আগে বিয়ে করে মালয়েশিয়ায় যাই। আমি ১৪ বছর বিদেশ থেকে গত ৩ বছর আগে দেশে আসি আমার বাড়িতে আমার বিদেশে থাকা অবস্থায় আমার সকল টাকা-পয়সা আমি আমার স্ত্রী সাথী বেগমের অ্যাকাউন্টে পাঠিয়েছি। গত ১৪ বছর বিদেশে থেকে টাকা-পয়সা পাঠাই। এখন আমি আমার স্ত্রীর নিকট আমার গচ্ছিত টাকা চাইলে আমার শ্বশুর বাড়ির লোকজন আমাকে বিশ লক্ষ টাকা দিয়েছে বলে দাবি করে উল্টো চাপ সৃষ্টি করে আমার সাথে এরূপ আচরণ করছে। আমার বিদেশ থেকে পাঠানো টাকার কোন হিসাব চাইলে ওরা দেয় না, উল্টা আমার সাথে এই সকল বাজে ব্যবহার করছে, আমাকে তারা এখনো হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। সেই সাথে তারা আমাকে মেরে লাশ গুম করে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। এখন আমার জীবন নিয়ে আমি মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে আছি।

পরে এ ব্যাপারে টুঙ্গিপাড়া থানায় নুর-নবী (নুহু) নিজে বাদী হয়ে শ্বশুর নূর মোহাম্মদ (৬০), শালক সাগর (৪০), শাশুড়ি মমতাজ বেগম (৫৫), সর্ব সাং- মাঝবাড়ি, থানা-কোটালীপাড়া, জেলা- গোপালগঞ্জ এবং স্ত্রী সাথী বেগম (৪২) এর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।