• ঢাকা
  • শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৮:৩০ অপরাহ্ন

ঝালকাঠিতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্ম বিরতি


প্রকাশের সময় : মে ৯, ২০২৪, ৯:১১ অপরাহ্ন / ১৭
ঝালকাঠিতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্ম বিরতি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঝালকাঠিঃ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে আধুনিক বিদ্যুৎ ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মধ্যকার বৈষম্য দূরীকরণসহ অভিন্ন চাকুরীবিধি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ঝালকাঠি পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা কর্মচারীদের অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্ম বিরতি পালন করছেন।

বৃহস্পতিবার ৯ই মে পবিস কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী সারাদেশে ন্যয় অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতির ডাকে সারা দিয়ে ঝালকাঠি প্রতাপ এলাকায় পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে ব্যানার হাতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্ম বিরতি পালন করছেন।

এ সময় ঝালকাঠি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি’র জুনিয়ার ইঞ্জিনিয়ার এস এম শামীমুল হক বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্ম বিরতি পালন করছি। বিদ্যুৎ লাইন সচল রেখে আমরা আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি চালিয়ে যাবো। জনগণের যাতে ভোগান্তি না হয় সেই কথা চিন্তা করে বিদ্যুৎ লাইন সচল রেখে আমাদের কর্মবিরতি চলছে। তিনি আরো বলেন, নিয়মিত লাইনম্যান যে বেতন পাচ্ছে চুক্তিভিত্তিক লাইন ম‍্যান ও দৈনিক চুক্তির ভিত্তিতে শ্রমিকরা বেশি কাজ করেও সেই বেতন পাচ্ছে না।

কিছুদিন আগে কাঠালিয়ায় বিদ্যুতে কাজ করার সময় দুই শ্রমিক মারা গিয়েছে। একজন নিয়মিত লাইনম্যান অন্যজন শ্রমিক। নিয়মিত লাইন ম্যান ২০ থেকে ২১ লক্ষ টাকা পেয়েছে কিন্তু শ্রমিক যে ছিল সে এক টাকাও পায়নি। যাদের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ তারা ২৪ ঘন্টা বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মিটার রিডিং নিয়ে আসে তাদেরকে ভয় দেখানো হয় তিন মাস পর তোমার চাকরি থাকবে না। একই জায়গায় দুটি প্রতিষ্ঠান REB / PBS দুটি প্রতিষ্ঠান হয় না। এইসব বৈষম্য থেকে আমরা মুক্তি চাই। আন্দোলন করতে গিয়ে আমাদের দুই ভাইকে চাকুরীচুত করা হয়েছে তাদেরকে পুনরায় চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার দাবী জানাচ্ছি। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে ১২ টি দাবী জানিয়ে স্মারকলিপি প্রদান করেছি।

বিদ্যমান বৈষম্যগুলো দূর করার জন্য বেতন কাঠামো ও সরকার প্রদত্ত সুযোগ-সুবিধা বিআরইবির সঙ্গে সমানভাবে পরিপালন, সাপ্তাহিক ছুটি একদিনের পরিবর্তে দুইদিন এবং পদন্নোতি ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার ক্ষেত্রে বিআরইবির সঙ্গে সমন্বয় চান তারা।