• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:২১ অপরাহ্ন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঋণ দেয়ার নামে মধুমতির প্রতারণা, গ্রাহককে প্রাণনাশের হুমকি


প্রকাশের সময় : জুলাই ২৬, ২০২২, ৬:২০ অপরাহ্ন / ৯৯
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঋণ দেয়ার নামে মধুমতির প্রতারণা, গ্রাহককে প্রাণনাশের হুমকি

এস এম রুবেল, চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের অবৈধ এনজিও মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থার বিরুদ্ধে গ্রাহককে ঋণ দেয়ার নামে প্রতারণা করার অভিযোগ উঠেছে। দীর্ঘদিন ধরে সঞ্চয়ের টাকা না দিয়ে ঋণ দেয়ার নামে প্রতারণা করার অভিযোগ করেছেন গ্রাহকরা। সঞ্চয় রাখার পরেও বার বার ঘুরে ঋণ পায়নি বলে অভিযোগ করেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহরের শিয়ালা কলোনীর মৃত সাজাহান আলীর ছেলে মো. বাবু।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) দুপুরে মধুমতির জেলা শহরের সিসিডিবি মোড় শাখায় গেলে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে হামলা করা হয় গ্রাহক বাবুর উপর। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার পর মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থার সিসিডিবি মোড় শাখার ম্যানেজার ও কর্মীরা বাবুকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বাবু ও তার পরিবার।

স্থানীয় বাসিন্দা, গ্রাহক ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মো. বাবু এক বছর মেয়াদি হিসেবে ৫০ হাজার টাকা ঋণ করেছিল মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থা থেকে। এক বছর মেয়াদি ঋণ হলেও ১০ মাসে শোধ করে দেয় বাবু। শোধ করলে ১ লাখ টাকা ঋণ দেয়ার প্রতিশ্রুতিতে অগ্রিম টাকা দিয়ে দেয় গ্রাহক বাবু। এসময় মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থায় তার ৮ হাজার টাকা সঞ্চয় থাকে। এই টাকা উত্তোলনের জন্য বারবার ঘুরলেও ঋণ দেয়ার কথা বলে তাতে অস্বীকৃতি জানায় এনজিওর কর্মী মাসুম ও ম্যানেজার রাসেল।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে ঘুরেও ঋণ বা সঞ্চয়ের টাকা দিতে নানারকম টালবাহানা করতে থাকে এনজিওর কর্মীরা। মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) দুপুরে সিসিডিবি মোড় শাখায় ঋণ অথবা সঞ্চয়ের টাকা নিতে গেলে কথা কাটাকাটি হয় গ্রাহক বাবু ও এনজিও কর্মীদের মাঝে। পরে এনজিওর ম্যানেজার রাসেলের নির্দেশে কর্মীরা হামলা করে গ্রাহক বাবুর উপর। এসময় তাকে বেধড়ক মারধর করে তারা। পরে স্থানীয়রা খবর দিলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

গ্রাহক মো. বাবু বলেন, আমার সাথে প্রতারণা করেছে মধুমতি এনজিও। পরবর্তীতে ঋণ দেয়ার নামে নিদিষ্ট সময়ের আগেই টাকা শোধ করিয়েছে। কিন্তু ঋণ দেয়নি। এমনকি সঞ্চয়ের টাকা দিতেও অস্বীকৃতি জানায়। চাইলে গেলে আমার উপর হামলা চালায় এনজিও কর্মীরা। উল্টো আমাকে এখনও নানারকম ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে তারা। এনজিও কর্মীরা জানায়, আমাদের বিরুদ্ধে কথা বলে কোন লাভ নাই। আমাদের সকল সরকারি দপ্তরকে ম্যানেজ করা আছে।

এবিষয়ে মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থার মাঠকর্মী মাসুম কোন কথা বলতে রাজি হননি। সিসিডিবি মোড় শাখার ম্যানেজার রাসেল বলেন, মাঠকর্মীর ভুল হয়েছে। পরবর্তীতে আর এমন ঘটনা ঘটবে না। এনিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জিয়াউর রহমান জানান, ঘটনাস্থলে ঝামেলা হলে থানায় ফোন পাওয়ার পর আমরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এনিয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটি বা এমআরএ’র কোনরকম অনুমোদন ছাড়াই অবৈধভাবে ক্ষুদ্র ঋণের কার্যক্রম পরিচালনা করছে মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থা। জেলাজুড়ে প্রায় অর্ধশতাধিক শাখার মাধ্যমে এই ক্ষুদ্র ঋণের কার্যক্রম করছে তারা। সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, যেকোন সময় গ্রাহকের জমানো টাকা নিয়ে পালাতে পারে অবৈধ এনজিও মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুদ রানা।