• ঢাকা
  • শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:১৩ পূর্বাহ্ন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঈদ আনন্দের মতো করে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদযাপন


প্রকাশের সময় : জুন ২৫, ২০২২, ৪:৫৫ অপরাহ্ন / ৬৬
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঈদ আনন্দের মতো করে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদযাপন

এস এম রুবেল, চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ২৫ জুন সকাল ১০ টায় পুরাতন স্টেডিয়ামে এ অনুষ্ঠান উদযাপিত হয় উক্ত অনুষ্ঠানকে ঘিরে গত দুইদিন থেকে শহরকে জাঁকজমকভাবে সাজানোর প্রস্তুতি চলছিল। অবশেষে সকালে যখন এর শেষ হলো প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য প্রদানের মাধ্যমে সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে। পদ্মা সেতুর উদ্বোধন এর প্রধান অতিথি ছিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা।অনুষ্ঠানকে ঘিরে জেলার সকল গণ্যমান্য ব্যক্তিগনসহ ও জেলা প্রশাসক একেএম গালিব খান, পুলিশ সুপার আব্দুর রকিব ( বিপিএম পিপিএম বার) আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সম্মানিত সভাপতি জিয়াউর রহমান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওদুদ বিশ্বাস এছাড়াও বিভিন্ন নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বিভিন্ন সরকারি দপ্তর ও স্থাপনা সাজানোর পাশাপাশি স্কুল কলেজের ছাত্ররাও এ অনুষ্ঠানে ব্যাপকভাবে উৎফুল্ল হয়ে উপস্থিত হয়েছে। সম্মানিত পুলিশ সুপার আব্দুর রকিব স্যার বক্তব্যে বলেন, তার অসুস্থ বাবা হাসপাতাল থেকে রিলিজ পেয়েছে তবে শারীরিক অবস্থা এতটাও ভালো নেই যে ঘাট পার হয়ে এত দূরত্বের পথ পেরোবেন তাই তিনি পদ্মা সেতুর উদ্বোধন এর পরেই তিনি সেতুর ওপর দিয়ে তার নিজ শহর ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় যাবেন।

পদ্মা সেতু চালুর ফলে যশোর থেকে ঢাকার দুরত্ব মাত্র ১৫৭ কিলোমিটার, বেনাপোল থেকে ঢাকার দূরত্ব ১৯৩ কিলোমিটার এবং নড়াইল থেকে ঢাকার দূরত্ব ১২৭ কিলোমিটার হবে।যশোর,বেনাপোল, নড়াইল,খুলনা, ঢাকাসহ আশেপাশের জেলার সঙ্গে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে। এ সেতু চালুর ফলে ঢাকা থেকে যশোর, বেনাপোলসহ অন্যান্য জেলায় কোথাও ১০০ কিলোমিটার,কোথাও আবার দেড়শ কিলোমিটার কমে যাবে।

এছাড়া শিল্প শহর যশোরের নওয়াপাড়া এবং সাতক্ষীরা স্থলবন্দরের যোগাযোগ সহজ হবে। রাজধানী ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার হাজার হাজার মানুষের যোগাযোগের সহজতর পথ এ রুট দিয়ে। উৎসব আর ছুটির দিনে ঘাটে বাড়ে মানুষের চাপ, ঘণ্টার পর ঘণ্টা ঘাটে বসে থাকা এসব কিছু পদ্মা সেতু চালুর মধ্য দিয়ে যাতায়াতকারী মানুষের অসহনীয় ভোগান্তি দূর হবে। লক্ষাধিক অসহায় মানুষ ও দক্ষিণবঙ্গের দুঃখের অবসান ঘটবে এ সেতুর মাধ্যমে।