• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

গোপালগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরে গৃহবধূকে এসিড নিক্ষেপের অভিযোগ


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১৮, ২০২৪, ১০:৩৮ অপরাহ্ন / ৪৬
গোপালগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরে গৃহবধূকে এসিড নিক্ষেপের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোপালগঞ্জঃ গোপালগঞ্জে জমি সংক্রান্তে পূর্ব বিরোধের জেরে রাতের আঁধারে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে শারমিন খানম নামের এক গৃহবধূকে এসিড নিক্ষেপের অভিযোগ উঠেছে। এতে শারমিন খানমের শরীরের বুক ও পিঠের অধিকাংশ স্থান পুড়ে গেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় রাতেই গ্ৰামবাসী ও ভিকটিমের স্বজনরা তাকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্য বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ৭নং উরফি ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের পশ্চিম পাড়া গ্ৰামে।

এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। পুলিশ খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও এখন পর্যন্ত কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

ভিকটিম শারমিন খানম হাসপাতালের বেডে শুয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১ টার দিকে শব্দ শুনে হঠাৎ ঘুম ভেঙে যায়, কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমার মুখ বেঁধে ফেলে। এ সময় আধো আলোতে প্রতিবেশী শাহীন মুন্সী, সুমি বেগম ও আনিচ মুন্সীকে দেখতে পাই। তারা আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয় এবং তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা লড়াই করতে নিষেধ করে। এক পর্যায়ে শাহীন মুন্সী আমাকে পানি জাতীয় কিছু ছুঁড়ে মারলে আমি ছটফট করতে থাকি। এখন বুঝতে পারছি আমাকে এসিড মারা হয়েছে। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।

ভিকটিমের নোনদ ঝুমা খানম বলেন, জমিজমা নিয়ে ঝামেলা ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এর আগেও শাহীন মুন্সীর ৮ বছরের মেয়ে সোহানা কে দিয়ে গত ৫ জানুয়ারি ২০২৪ সালে ধর্ষণ মামলা করেছিল। ওই মামলায় বর্তমান ভিকটিমের পিতা সিরাজুল হক (কালু মুন্সী) জেলহাজতে রয়েছে।

এ বিষয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আনিচুর রহমান বলেন, আমরা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, ভিকটিমের ভাষ্য অনুযায়ী অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে। পাশাপাশি তদন্ত চলছে, খুব অল্প সময়ের মধ্যেই অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হবো।