• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

গোপালগঞ্জে জামিন পেয়ে বাদীর ছোট ভাই কলেজ ছাত্রকে হাতুড়ি পেটা করার অভিযোগ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে


প্রকাশের সময় : জুন ২৯, ২০২২, ১০:২৮ অপরাহ্ন / ৮৫
গোপালগঞ্জে জামিন পেয়ে বাদীর ছোট ভাই কলেজ ছাত্রকে হাতুড়ি পেটা করার অভিযোগ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জে আদালত থেকে জামিন নিয়ে মামলার বাদী কলেজ পড়ুয়া ছোটন মোল্লা (২২) কে হাতুড়ি পেটা করার অভিযোগ উঠেছে উক্ত মামলায় জামিন প্রাপ্ত ২০ আসামীর বিরুদ্ধে।

বুধবার (২৯ জুন) দুপুর দেড়টায় সদর উপজেলার গোবরা রেল স্টেশনের বিপরীতে চরবয়রা নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত ছোটন মোল্লাকে উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। আহত ছোটন মোল্লা গোপালগঞ্জ সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র।

এ বিষয়ে গুরুতর আহত ছোটন মোল্লা ও তার স্বজনেরা গণমাধ্যমকে জানান, দুপুরে কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে আসামিরা পূর্বপরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্রসহ তাকে ভ্যান থেকে নামিয়ে দফায় দফায় তার ওপর হামলা করে। হামলাকারীরা চরবয়রা গ্রামের বাকাদ্দেছ মোল্লার ছেলে মারুফত মোল্লা (৩২), নুহঃ আলম মোল্লার ছেলে নিশাত (২২) ও আকাশ (২০), নসু মোল্লার ছেলে পিয়াল (২১), লুৎফর মোল্লার ছেলে নিজাম (৩০) ও হাছিব (২৮), আরজ মোল্লার ছেলে রিপন মোল্লা (৩২), শামু মোল্লার ছেলে ইউনুছ মোল্লা (৪৫), হাসান মোল্লার ছেলে পিয়াস (২২), মৃত আন্তু মোল্লার ছেলে লুৎফর মোল্লা, মৃত আজাহার মোল্লার ছেলে বাবুল মোল্লা সহ অন্যান্য আসামীরা।

এ সময় আহতের স্বজনেরা আরো বলেন, প্রায় দু’বছর আগে এলাকার একটি মসজিদ কমিটি গঠন করাকে কেন্দ্র করে ওই এলাকায় একটি হত্যাকান্ডের পর থেকে প্রতিপক্ষের লোকজন আমাদের ওপর হামলা চালিয়ে ঘর-বাড়ি ভাংচুর, মালামাল লুটপাট করে আমাদেরকে আসামী করে সদর থানায় একটি মামলা দেয়। উক্ত মামলায় আমরা নারী-পুরুষ সহ প্রায় ১২ জন দীর্ঘদিন কারাভোগ করি। পরে জামিনে বেরিয়েও আমাদের বসতভিটায় আমরা কেউ যেতে পারছি না।

এ সংক্রান্তে পরে আমরা লুটপাটের ঘটনায় জড়িত ২২ জনকে আসামী করে গোপাঃ সি. আর ৪৫০/২২ একটি লুটপাটের মামলা দেই, সেই মামলায় তারা বুধবার (২৯ জুন) আদালতে হাজির হয়ে জামিন নিয়ে বাদীর ছোট ভাই কলেজ শিক্ষার্থী ছোটন মোল্লার ওপর হামলা চালায়। আমরা প্রশাসনের নিকট সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জোর দাবি জানাচ্ছি সেই সাথে আমরা যেন আমাদের বাড়ি ঘরে ফিরতে পারি সেই ব্যবস্থা করতে আহ্বান জানাচ্ছি।