• ঢাকা
  • সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৭:২৬ পূর্বাহ্ন

গোপালগঞ্জে উগ্রবাদ প্রতিরোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর করণীয় ও প্রতিরোধে আলেমদের ভূমিকা শীর্ষক সেমিনার


প্রকাশের সময় : মে ১৯, ২০২৪, ১১:৩৬ অপরাহ্ন / ১২
গোপালগঞ্জে উগ্রবাদ প্রতিরোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর করণীয় ও প্রতিরোধে আলেমদের ভূমিকা শীর্ষক সেমিনার

কে এম সাইফুর রহমান, গোপালগঞ্জঃ গোপালগঞ্জ জেলা পুলিশ লাইন্সের ড্রিল শেডে “উগ্রবাদ প্রতিরোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর করনীয়” ও “উগ্রবাদ প্রতিরোধে আলেম সমাজের ভূমিকা” শীর্ষক  সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (১৯ মে) গোপালগঞ্জ জেলা পুলিশ লাইন্স ড্রিল শেডে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কর্তৃক আয়োজিত বাংলাদেশে পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় দিনব্যাপি এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

“উগ্রবাদ প্রতিরোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর করনীয়”  এবং উগ্রবাদ প্রতিরোধে আলেম সমাজের ভুমিকা” শীর্ষক সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন, গোপালগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার জনাব আল-বেলী আফিফা পিপিএম।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ খায়রুল আলম, গোপালগঞ্জের জেল সুপার আল-মামুন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস্) শফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় উক্ত সেমিনারে প্রধান আলোচক ছিলেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের এডিসি ইশতিয়াক আহমেদ। তিনি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে জঙ্গিবাদ দমনে কার কি ভূমিকা? সে সম্পর্কে সম্যক ধারণা প্রদান করেন।পাশাপাশি “ডেরাডিকেলাইজেশন” সম্পর্কে সকলের মাঝে স্পষ্ট ধারনা সৃষ্টির মাধ্যমে সচেতনতা বৃদ্ধি করেন। ডেরাডিকেলাইজেশন – বলতে চরম রাজনৈতিক, সামাজিক বা ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি সহ একজন ব্যক্তিকে বিষয়গুলিতে আরো মধ্যপন্থী অবস্থান গ্রহণ করতে উৎসাহিত করার একটি প্রক্রিয়া বোঝায়।

এছাড়াও উক্ত সেমিনারে জেলা পুলিশের বিভিন্ন কর্মকর্তা-সদস্যবৃন্দ, কারারক্ষী বাহিনীর সদস্য, আনসার সদস্যগণ এবং আলেম সমাজের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।