• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন

গোপালগঞ্জে অপ্রাপ্ত বয়সী সন্তানের হাতে বাইক তুলে দিয়ে তাদেরকে মৃত্যুঝুকিতে ফেলবেন না——-জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা


প্রকাশের সময় : মে ৮, ২০২২, ৬:৪১ অপরাহ্ন / ১২৫
গোপালগঞ্জে অপ্রাপ্ত বয়সী সন্তানের হাতে বাইক তুলে দিয়ে তাদেরকে মৃত্যুঝুকিতে ফেলবেন না——-জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা

কে এম সাইফুর রহমান, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জে উঠতি বয়সী সন্তানদের হাতে বাইক তুলে দিয়ে সন্তানকে মৃত্যুঝুকিতে ফেলছেন তাদের মা-বাবা ও অভিভাবকরা। জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা ‘মে/২০২২ -এ এমনটি জানালেন কমিটির সভাপতি, জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাহিদা সুলতানা।

অপ্রাপ্ত বয়সী সন্তানেরা বেপরোয়া গতিতে বাইক চালিয়ে মারাত্মক সড়ক দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে মূল্যবান সম্পদ এবং প্রাণ দুটোই হারিয়ে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ইদানিং গোপালগঞ্জে বাইক দুর্ঘটনায় অনেক অপ্রাপ্ত বয়সী ছেলেমেয়ে অকালে প্রাণ হারিয়েছেন। আবার কেউবা প্রাণে বেঁচে গিয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করছেন। এছাড়াও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্ষূদে শিক্ষার্থীরা বাইক নিয়ে আসা-যাওয়া করছে, এতেও দুর্ঘটনার পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে তিনি চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এ সময় পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা বিপিএম, পিপিএম, অপ্রাপ্ত বয়সী সন্তানদের কাছে বাইক পেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কঠোর হুঁশিয়ারি প্রদান করেন।

জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা এসময় আরো বলেন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস চলাকালীন সময়ে যদি কোন শিক্ষার্থী (ছাত্র -ছাত্রী) ক্লাস ফাঁকি দিয়ে বাহিরে ঘোরাফেরা বা আড্ডা-বাজি করে তাহলে তাদেরকে আইনের আওতায় নেওয়া, শহরের পৌর এলাকার বিভিন্ন রাস্তাঘাট ও মহাসড়কে যত্রতত্র গবাদিপশু (গরু-ছাগল- ভেড়া) ছেড়ে দিলে সেগুলোকে ধরে পৌর সভার খোয়ারে দেওয়া হবে। সেখান থেকে গরু প্রতি ১৫’শত টাকা জরিমানা দিয়ে প্রকৃত মালিককে ছাড়িয়ে নিতে হবে। এসকল গবাদি পশু অবাধে রাস্তাঘাটে চলাফেরা করায় হরহামেশা ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা, সেই সাথে নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ। শহরের ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করা কেন্দ্রগুলোয় ওই গবাদিপশু গুলো গিয়ে সেখানে সংরক্ষিত ময়লা আবর্জনা খেয়ে একদিকে যেমন দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে তেমনি পরিবেশের বিপর্যয় ঘটছে। জনসচেতনতায় শহরে মাইকিং করার নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক। জেলার বিভিন্ন অবৈধ ও দীর্ঘদিন যাবৎ বন্ধ থাকা ইটভাটাগুলো চিহ্নিতকরণ এবং বিভিন্ন ইটভাটায় জ্বালানি হিসেবে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে কি না? বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি করছে কিনা? জেলার বিভিন্ন হোটেল রেস্তোরায় স্বাস্থ্যসম্মত খাবার তৈরি ও বিক্রি হচ্ছে কি না তা পর্যবেক্ষণ করতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান জোরদার করতে এবং বাজারে নিত্যপণ্যের দ্রব্যে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্য নিচ্ছে কিনা? তা মনিটর করতে জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও জেলা মার্কেটিং কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেন জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাহিদা সুলতানা।

আজ রোববার (৮ মে) বেলা ১১ টায় গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষ “স্বচ্ছতা’য় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় এসব কথা বলেন তিনি। আইন- শৃঙ্খলা রক্ষায় এবং সড়ক দুর্ঘটনার কারণ ও তা নিরসনে প্রতিটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা দেন। এছাড়াও সরকারি জমি দখল ও অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কঠোর হওয়ার নির্দেশনা দেন তিনি।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মো. ইকবাল হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা বিপিএম, পিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) নিহাদ আদনান তাইয়ান, জেলা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ মোহাম্মদ রুহুল আমিন, কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেহেদী হাসান, মুকসুদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জোবায়ের রহমান রাশেদ, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মহসিন উদ্দীন, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম হেদায়েতুল ইসলাম, কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌস ওয়াহিদ, গোপালগঞ্জ প্রেস ক্লাবের মহাসচিব সৈয়দ মিরাজুল ইসলাম, যমুনা টিভির স্টাফ রিপোর্টার মোজাম্মেল হোসেন মুন্না, গণমাধ্যমকর্মী কে এম সাইফুর রহমান, জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ইফতেখার উমায়ের, ডেপুটি জেলার মো. রাহাত ইসলাম, জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আলতাফ হোসেন, জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. শামীম হাসান, জেলা মার্কেটিং অফিসার আরিফ হোসেন, সওজ’র সহকারী প্রকৌশলী মো. করিম আলী খান সহ জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।