• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৯:০৯ পূর্বাহ্ন

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরের কৃতি সন্তান রিয়াজ মিনাকে সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনীত করায় গ্রামবাসীর সংবর্ধনা প্রদান


প্রকাশের সময় : মে ২২, ২০২৩, ৩:০৮ অপরাহ্ন / ১৪৩
গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরের কৃতি সন্তান রিয়াজ মিনাকে সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনীত করায় গ্রামবাসীর সংবর্ধনা প্রদান

কে এম সাইফুর রহমান, গোপালগঞ্জঃ গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মো. রিয়াজ মিনাকে মনোনীত করায় তাকে সংবর্ধনা দিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

শনিবার সন্ধ্যায় পূর্ব নওখন্ডা গ্রামের সর্বস্তরের জনগণ তাকে ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানিয়ে মিষ্টিমুখ করান। এসময় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান মাস্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক সজল কুমার সাহা, কোষাধ্যক্ষ শাহালম মুন্সী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক কাজী মশিউর রহমান রিয়াজ, ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হুমায়ুন মিনা, সহ-সম্পাদক আনোয়ার হোসেন মিনা, মাহাবুব মিনা, ৪ নং লীগের সভাপতি মন্টু সাহা, ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অখিল ঘোষ, শহীদ মুক্তিযোদ্ধার ভাই হারুন অর রশিদ সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মো. রিয়াজ মিনা (৪০) পূর্ব নওখন্ডা গ্রামের প্রয়াত সুবেদার মেজর আব্দুল হক মিনার সন্তান। তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। বাল্যকাল থেকেই রিয়াজ অত্যন্ত মেধাবী ও পরিশ্রমী ছিলেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি কৃতিত্বের সাথে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। কলেজ জীবন থেকেই তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন। পরবর্তীতে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক হিসেবে সততা ও নিষ্ঠার সাথে অর্পিত দায়িত্ব পালন করেন। ছাত্র জীবন থেকেই তিনি সাংবাদিকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন। সততা ও কঠোর প্ররিশ্রমের মাধ্যমে নিজ কর্মগুনে তিনি “লামিয়া গ্রুপ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌ বাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করে চলেছেন। এছাড়াও ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন রুটে চলমান একাধিক পরিবহন ব্যবসার সাথে তিনি নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। আওয়ামী রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ও গোপালগঞ্জে বাড়ি বিধায় তৎকালীন বিএনপি ও জামাত জোটের সন্ত্রাসীরা পেট্রোল বোমা ও অগ্নি সংযোগে বেশ কয়েকটি বাস পুড়িয়ে দিয়ে বিরম্বনায় ফেলেন। পরবর্তীতে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের হাতে রিয়াজ মিনাকে আর্থিক ক্ষতি পুরণের চেক প্রদান করেন। বৈশ্বিক করোনা মহামারীতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তিনি অসহায় দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। শুধু তাই নয় এলাকায় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের কথা বিবেচনায় নিজ অর্থ ব্যয়ে নির্মাণ করেছেন আধুনিক ও দৃষ্টি নন্দন দুই তলা বিশিষ্ট পাকা মসজিদ।
এছাড়াও তিনি একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। দাম্পত্য জীবনে রিয়াজ মিনা বিবাহিত, তার সহধর্মিণীর নাম এলিজা সুলতানা। তিনি দেশের স্বনামধন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে শারীরিক শিক্ষক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। দুই কন্যা সন্তানের জনক তিনি। বড় মেয়ের নাম সাবিকুন নাহার লামিয়া (১৭), সে চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষার্থী এবং ছোট মেয়ের নাম মুশফিকা জাহান (৯) পঞ্চম শ্রেণিতে অধ্যায়নরত। সম্প্রতি মো. রিয়াজ মিনা মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মনোনীত হওয়ার পর তিনি গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, জীবনে তার চাওয়া-পাওয়ার আর কিছুই নেই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে, গোপালগঞ্জ-১ আসনের বারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য মুহাম্মদ ফারুক খানের দিকনির্দেশনায়, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহাবুব আলী খান, সাধারণ সম্পাদক জিএম সাহাব উদ্দিন, মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মো. রবিউল আলম শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাহিদুর রহমান টুটুল সহ সকলকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।