• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে মিজানুর রহমান নামে এক প্রবাসী অবৈধ ভাবে কোটি টাকার বালু তুলে নিলেন


প্রকাশের সময় : অগাস্ট ৯, ২০২১, ১১:৫২ অপরাহ্ন / ২৪৩
গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে মিজানুর রহমান নামে এক প্রবাসী অবৈধ ভাবে কোটি টাকার বালু তুলে নিলেন

কে এম সাইফুর রহমান,গোপালগঞ্জঃ গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বহুগ্রামে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে সরকারি খাল থেকে প্রায় কোটি টাকার বালু তুলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কাতার প্রবাসী এক রেমিট্যান্স যোদ্ধা ও সরকার দলীয় একাধিক রাজনৈতিক সংগঠনের নেতা পরিচয় দানকারী মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে।

সে মুকসুদপুরের বহুগ্রাম ইউনিয়নের হরিনাহাটি গ্রামের মৃত উজির মিয়ার ছেলে। গরুর খামার করার জন্য তিনি আইনের তোয়াক্কা না করে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে এহেন অবৈধ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। অভিযোগের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ওই এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় প্রবাসী মিজানুর রহমান বেশ কয়েকদিন যাবৎ অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে নিচু জায়গা ভরাট করে চলেছেন।ভরাটকৃত বালুর আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ১ কোটি টাকা হবে বলে জানান এলাকাবাসী।

সরকারি খাল থেকে অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বিরামহীন ভাবে বালু উত্তোলনের ফলে ওই খাল সংলগ্ন ব্রীজ, এলাকার রাস্তা-ঘাট সহ বসতবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি ও ভূমি ধ্বসের শঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

মুকসুদপুরসহ গোপালগঞ্জের সমস্ত উপজেলা থেকে অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন চক্রের দৌরাত্ম্য থেকে দ্রুত পরিত্রাণ পেতে জেলা প্রশাসক সহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন ভুক্তভোগীরা ও সংশ্লিষ্ট মহল।

এ বিষয়ে সোমবার বিকালে মুকসুদপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ মোঃ আলাউল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে মুকসুদপুর উপজেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। পরে সাংবাদিকের নিকট থেকে তিনি তথ্য ও ঠিকানা নিয়ে দ্রুত অভিযান পরিচালনা করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এ ব্যাপারে আমাদের প্রতিনিধি অভিযুক্ত মিজানুর রহমানের ব্যক্তিগত …..১১২৭ মুঠোফোনে কল করে সরকারি খাল থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধ ভাবে কোটি টাকার বালু তুলে নেওয়ার অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মিজানুর বালু উত্তোলনের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মুকসুদপুরে শত শত ড্রেজার চালিয়ে সবাই বালু উত্তোলন করছে। আমি খাল থেকে নয়, খাল থেকে প্রায় ১৫ ‘শত মিটার দূরে আমার নিজের জায়গা থেকে বালু উত্তোলন করছি। ওখানে একটি গরুর খামার করবো বলে। পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদ যদি ৫ ‘শত বিঘা জমি ভরাট করতে পারে তাহলে আমি কেন পারবো না। আমি কাতার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি ও কাতার-মদিনা থানার সাবেক সভাপতি এবং একজন রেমিটেন্স যোদ্ধা। আপনারা আগে ওনাদের টা বন্ধ করেন। তারপরে আমি আমারটা বন্ধ করবো।