• ঢাকা
  • রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:২৩ পূর্বাহ্ন

গায়িকা তানজিনা রুমা’র আঁধার সরিয়ে


প্রকাশের সময় : জুন ২১, ২০২১, ১:২৬ অপরাহ্ন / ২২০
গায়িকা তানজিনা রুমা’র আঁধার সরিয়ে

মনিরুজ্জামান অপূর্ব : তাঁর গায়কী থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। তাঁর গান গাওয়ার স্টাইল অনেককেই মুগ্ধ করে। কিন্তু আমাকে তাঁর যে দিকটি বেশি টানে তা হলো তাঁর ব্যক্তিত্ব। আমি বারবার হাজারবার তাঁর ব্যক্তিত্বের প্রেমে পড়ি।’ উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী, সুরকার রুনা লায়লা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে শ্রোতাপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী তানজিনা রুমা এভাবেই বলছিলেন। রুনা লায়লা তার প্রিয় শিল্পী। মঞ্চে ছোটবেলা থেকে বড় বেলাতে এসেও রুনা লায়লা’র গাওয়া ‘ইস্টিসনের রেলগাড়িটা’ অনেকবার গেয়েছেন। কিন্তু এখন রুনা লায়লায়র গাওয়া ‘মাঝি তুমি মাঝ গাঙ্গে নাও বাইয়া যাও’, ‘জানিগো ফুরাবে রাত’ কিংবা ‘শেষ করোনা শুরুতে খেলা’ গানগুলোই রুমাকে বেশি টানে। রুনা লায়লা তার সুর করা গানগুলো’র সঙ্গীতায়োজন করিয়ে থাকেন লন্ডনের রাজা ক্যাশেফ’কে দিয়ে। সেই রাজা ক্যাশেফই তানজিনা রুমা’র ‘আঁধার সরিয়ে’ গানের সুর সঙ্গীত করেছিলেন। গানটি লিখেছেন কবির বকুল। আজ থেকে দশ মাস আগে ইউটিউবে গানটির লিরিক্যাল ভার্সন প্রকাশ হয়। গানটির শ্রোতাপ্রিয়তার কথা বিবেচনা করে এরইমধ্যে গানটির মিউজিক ভিডিও করা হয়েছে। মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করেছেন শাহেদ শরীফ। আজ সন্ধ্যায় ইউটিউবে প্রকাশ পাবে ‘আঁধার সরিয়ে’ গানটির মিউজিক ভিডিও। গানটি প্রসঙ্গে তানজিনা রুমা বলেন, ‘গানটির কথা এবং সুর আমার নিজের কাছেই ভালোলেগেছিলো। গানটির লিরিক্যাল ভার্সন প্রকাশ হবার পর বেশ সাড়া পাই। যে কারণে বৃষ্টি মুখরিত এই দিনে গানটির মিউজিক ভিডিও প্রকাশ করা হচ্ছে। আশা করছি সবার ভালোলাগবে।’ রাজা ক্যাশেফ বলেন, ‘তানজিনা রুমার কণ্ঠটি ভীষণ মিষ্টি। আঁধার সরিয়ে গানটির সুর সঙ্গীতের সাথে তিনি গেয়েছেনও দুর্দান্ত।’ তানজিনা রুমার গানে হাতেখড়ি ওস্তাদ সাধন চন্দ্র বর্মনের কাছে। পরবর্তীতে তিনি ওস্তাদ ফুল মোহাম্মদ, নীলুফার ইয়াসমিন, শিপ্রা বাসু (কলকাতা), অনীল কুমার সাহা’র কাছে গানে তালিম নেন। এখন পর্যন্ত তানজিনা রুমা ৬৫০’রও অধিক সিনেমায় গান গেয়েছেন। ২০০৩ সালে তিনি প্রথম ‘ঐক্য জোট’ সিনেমায় প্লে-ব্যাক করেন। সর্বশেষ ‘হƒদ মাঝারে রাখিবো’ সিনেমায় তিনি প্লে-ব্যাক করেন। তানজিনা রুমার প্রথম প্রকাশিত গানের অ্যালবাম ২০০১ সালে সাইফুল হোসেনের লেখা ও মাসুদ কোরাইশী’র সুরে ‘বন্ধু তুমি কোথায়’। পরবর্তীতে ‘ভালোবাসার প্রথম চিঠি’, ‘নীল জোছনা’, ‘মেঘের দেশে’, ‘লুকোচুরি’, ‘সমীরণ’সহ আরো কয়েকটি অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। রুমার বাবা মো. মোছলেহ উদ্দিন ভূঁইয়া ও মা মিসেস মনোয়ারা ।