• ঢাকা
  • শনিবার, ২২ Jun ২০২৪, ০৪:২৯ অপরাহ্ন

খুলনার বটিয়াঘাটায় সরকারি জায়গা দখল করে গড়ে তুলেছে মুরগির খামার


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ৯, ২০২৩, ৯:১৯ অপরাহ্ন / ৮৫
খুলনার বটিয়াঘাটায় সরকারি জায়গা দখল করে গড়ে তুলেছে মুরগির খামার

এইচ এম সাগর হিরামন, খুলনাঃ সরকারি জায়গা দখল করে মুরগির খামার গড়ে তুলেছে এক আওয়ামীলীগ নেতা বলে অভিযোগ উঠেছে।বটিয়াঘাটা উপজেলার সুরখালী ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ এর বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক পদে কর্মরত রয়েছে বলে তিনি নিজেকে দাবি করেন। দলের নাম ভাঙ্গিয়ে ও দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করে এই আওয়ামী লীগ নেতা একের পর এক সরকারি জায়গা জমি দখল করে রেখেছে। এছাড়া মুদি দোকানের পাশাপাশি ড্রাগ লাইসেন্স ছাড়া গড়ে তুলেছে একটি ফার্মেসী প্রতিষ্ঠান। যার নেই কোন বৈধ কাগজপত্র। আবার নিজেকে এলাকায় পল্লী চিকিৎসক বলে দাবি করেন তিনি। সুদর্শন নায়কের মত এই পুরুষকে দেখে বোঝা যায় না যে,সে নানাবিধ অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে।

এক অভিযোগের সূত্র ধরে তথ্য অনুসন্ধানে গিয়ে জানা যায়, তার বিরুদ্ধে নানাবিধ অভিযোগ। তিনি হলেন উপজেলার ৪নং সুরখালী ইউনিয়নের বুনারাবাদ এলাকার দিপক কুমার মন্ডল। সে একজন পল্লী চিকিৎসক, সার্ভেয়ার,ও রাজনীতিবিদ বলে নিজেকে পরিচয় দেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডের সরকারি জায়গা দখল করে কেন মুরগির খাবার গড়ে তুলেছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন,আমার বাপ-দাদার আমল থেকে আমরা উক্ত জায়গা দখল করে বসবাস করে আসছি। আমরা লীজ নিয়ে জায়গা দখল করে আছি। আমাদের নামে লীজ নেওয়া আছে। তাই আমরা জায়গা দখল করে মুরগির খামার করেছি।

তিনি আরো বলেন, শুধু আমি কেন এলাকায় আরো অনেকে সরকারি জায়গা দখল করে বসবাস করছে। আমারটি উচ্ছেদ হলে তাদের জায়গাও উচ্ছেদ করতে হবে।

সুরখালী ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন লিটু বলেন, দিপক মন্ডল দীর্ঘদিন যাবত নাইনখালী পুরাতন গেটের পানি উন্নয়ন বোর্ডের সরকারি জায়গা দখল করে গড়ে তুলেছে মুরগির খামার। এ বিষয়ে আমি পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেছি।

খুলনার পানিউন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আশরাফুল আলম বলেন, কোন লীজ দেওয়া নাই। লীজ বন্ধ। যদি সে দখলে থাকে সেটি অবৈধ ভাবে রয়েছে। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক আইনগত ব‍্যবস্থা গ্রহন করা হবে।