• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন

খুলনার পাইকগাছায় ঢাক-ঢোল আর ভক্তদের পদচারণায় শ্রী শ্রী মহাশ্মশান রক্ষাকালী পূজা পালিত


প্রকাশের সময় : মার্চ ৩, ২০২৪, ৪:০৫ অপরাহ্ন / ২৮
খুলনার পাইকগাছায় ঢাক-ঢোল আর ভক্তদের পদচারণায় শ্রী শ্রী মহাশ্মশান রক্ষাকালী পূজা পালিত

মোঃ মানছুর রহমান জাহিদঃ খুলনার পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি ইউনিয়নের সিলেমানপুর সর্বজনীন মহাশ্মশান রক্ষাকালী মন্দিরে বিভিন্ন কর্মসূচি ও মহা ধুমধামের সাথে শ্রী শ্রী মহাশ্মশান রক্ষা কালীপূজা পালিত হয়েছে।

৩রা মার্চ শনিবার সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভক্তবৃন্দ এসে আশ্রয় গ্রহণ করেন মন্দিরে। সন্ধ্যা হতেই মন্দিরসহ মন্দিরের সীমানা ও আঙ্গিনায় ধুপ, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেন দূরদূরান্ত থেকে আসা মায়ের ভক্তবৃন্দ ও মন্দির কর্তৃপক্ষ। সন্ধ্যা থেকে ঢাক-ঢোল, ভক্তদের পদচারণায় মুখরিত ছিল মন্দির প্রাঙ্গন। ধূপ-ধূনার গন্ধ আর বাতির আলোয় আলোকিত হবে এই কামনায় ফলফলাদি ও ডালা (বাতাসা) নিয়ে হাজির ছিল দুর দরান্ত থেকে আগত হাজারও মায়ের ভক্তবৃন্দ।

সারাদিন ব্যাপী আয়োজিত শ্রী শ্রী মহাশ্মশান রক্ষাকালী পূজা-২০২৪ এ সন্ধ্যা ৭টায় মায়ের বন্ধনা, রাত ৮টায় জয় মায়ের ডাঙ্কানুষ্ঠান ও রাত ১২টা ১ মিনিটে মায়ের পূজারম্ভ পূজান্তে প্রসাদ বিতরণের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

শ্রী শ্রী মহাশ্মশান রক্ষাকালী মন্দির কমিটির সভাপতি বাবু গৌতম ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক বাবু সাধন বিশ্বাসের সার্বিক দিক নির্দেশনায় জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত কয়েক হাজার ভক্তের সমাগামে আয়োজিত রক্ষা কালী পূজা সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে পালিত হয়েছে।

শ্রী শ্রী মহাশ্মশান রক্ষা কালী পূজায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে পূজা মন্দিরে পর্যায়ক্রমে উপস্থিত ছিলেন, পাইকগাছা উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আনন্দ মোহন বিশ্বাস, খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্যের ভাইপো মেহেদী আল মাসুদ সবুজ, উপজেলা নির্বাচনে মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী অনিতা রানী মন্ডল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান মুসা।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সাইফুল ইসলাম, বিকাশ রায়, সত্যজিৎ পাল,পিযুজ সাধু, রেজাউল ইসলাম, ইকলাচুর রহমান বাবু, রহমত মোড়ল, জামাল মোড়ল, সিরাজুল ইসলাম, মনিরুজ্জামান মনি, স্বপন কর্মকার, ইজাজুল ইসলাম, জসিম মোড়ল, বাবু মোড়ল, মুজিবুর সানা, আওয়াল, কুমারেশ, মানিক, সাত্তার মোল্লা, বদরুল গাজী, হালিম গাজীসহ মন্দির কমিটির অন্যান্য সকল সদস্যসহ আগত হাজার হাজার ভক্তবৃন্দরা।