• ঢাকা
  • শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:২৪ অপরাহ্ন

খুলনার দিঘলিয়ায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর ১ মাস পরে ৩ লাখ টাকার বিনিময় নিষ্পত্তির তোর জোড়


প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ১৪, ২০২৩, ৭:১০ অপরাহ্ন / ২০
খুলনার দিঘলিয়ায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর ১ মাস পরে ৩ লাখ টাকার বিনিময় নিষ্পত্তির তোর জোড়

মোস্তাইন বীন ইদ্রিস চঞ্চল,খুলনাঃ খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার সেনহাটি ইউনিয়ন এর চন্দনীমহল খ্রিস্টান পাড়া এলাকার বাসিন্দা ফনিদ্র সরকার এর কন্যা অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধু মুন্নি ( ২৫) এর রহস্যজনক মৃত্যুর ১ মাস পরে ৩ লাখ টাকার বিনিময় নিষ্পত্তির তোর জোড়।

সুত্রে জানা যায় গত ১৬ই ডিসেম্বর মুন্নি (২৫) অন্তঃসত্তার রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে, মৃতঃ মুন্নির পরিবার সূত্রে জানা যায় গত আড়াই বছর আগে বাগেরহাট বুড়িডাঙা এলাকার বাসিন্দারা সমপন সিং এর পুএ সনি সিং এর সাথে বিবাহ হয়। এবং বিয়ের পর থেকেই সনি সিং এর পরিবার থেকে মুন্নির কাছে বিভিন্ন প্রোকার গহনা ও নগত টাকা পয়সা এনে দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে আসছিল মুন্নির পরিবার হত-দরিদ্র ও নিম্নবিও হওয়ায় স্বামীর বাড়ির আবদার পূরণ করতে পারেনি একপর্যায়ে মুন্নির গর্ভে একটি সন্তান ভূমিষ্ঠ হয় এবং ২১ শে ডিসেম্বর উক্ত সন্তান পৃথিবীর আলো দেখবে বলে জানা যায়, কিন্তু এরই মধ্যে সনি সিং বিদেশে চলে যায়, হটাৎ করে ১৬ ই ডিসেম্বর ২০২২ ইং সন্ধায় সনি সিং এর মা জেসমিন সিং ও সনি সিং এর ছোট্ট ভাই, খালা, মুন্নির লাশ নিয়ে দিঘলিয়ার সেনহাটি ইউনিয়ন এর চন্দনীমহল খ্রিস্টান পাড়ায় হাজির হয়। এবং সনি সিং এর মা জেসমিন সিং ও মৃত মুন্নির দেবর, টনি সিং, খালা শাশুড়ী, সহ ৪/৬ জন বলেন মুন্নি বিশ পানে আত্মহত্যা করেছে এমনকি মুন্নির মরদেহ খুলনা মেডিকেল থেকে ময়নাতদন্ত শেষে বাবার বাড়িতে নিয়ে আসে শশুর বাড়ির লোকজন , এবিষয়ে মুন্নির পরিবার সাংবাদিক দের জানান যে আমাদের মেয়ে শিক্ষিত এবং একুশে ডিসেম্বর তার বাচ্চা হবে সে কেন আত্মহত্যা করবে । এই প্রশ্নের কোন উত্তর মুন্নির শশুর বাড়ির লোকজন দিতে পারেনি, একপর্যায়ে সেনহাটি পুলিশ ক্যাম্পের এসআই নিপুণ ঘটনাস্থলে গিয়ে মুন্নির ময়নতদন্তের কাগজপত্র দেখে লাশের শেষ ক্রিয়াক্রম করার জন্য জানান, এবং মৃত্যুটা রহস্যজনক হলেও মংলা থানার বুড়িডাঙ্গা এলাকায় হওয়ার কারণে মৃতঃ মুন্নির পরিবার এখনো কোন আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেনি।

কথা হয় এলাকার মহিলা ইউপি সদস্য পলি আক্তার ও ৫ নং নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্যের সাথে তারা দুজনেই মুন্নির মৃত্যুকে রহস্যজনক বলে ধারণা করেন, তবে লাশ রেখে যাওয়ার সময় স্বামীর বাড়ি থেকে আশা লোকজন জানান আগামীকাল ১৭ ই ডিসেম্বর মৃতের শেষ কিয়াক্রমে তারা উপস্থিত থাকবেন কিন্তু দুটো প্রানের শেষ ক্রিয়াক্রমে কেউ হাজির হয়নি। এবিষয় টি নিয়ে এলাকায় বেশ চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে , এবং মৃতঃ মুন্নির পরিবার জানান রহস্যজনক মৃত্যু হওয়ায় তারা মংলার বুড়িডাঙ্গা এলাকার নিকটস্থ থানায় মামলা করবেন। কিন্তু দীর্ঘ এক মাস পার হয়ে গেলে রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনাটির বিষয় গোপনে মংলা এলাকায় গিয়ে মৃতঃ মুন্নির তিন ভাই দিপক সরকার, বিকাশ সরকার, আলদিনো সরকার , ভাবি সন্ধা, ও মৃতঃ মুন্নির চাচাতো ভাই সিবা সিং, পৌল সিং, ও মা, সনি সিং এর মা জেসমিন সিং , দেবর টনি সিং সহ ঐ পরিবারের লোকজন দের সাথে একটা আপোষনামা করে এবং মুন্নির পরিবারের পক্ষ থেকে যাওয়া প্রত্যেকেই সাদা কাগজে স্বাক্ষর করেন এবং অপরাপর সূত্রে জানা যায় ৩ লক্ষ টাকার সমন্বয় মুন্নির পরিবার সনি সিং এর পরিবারের সঙ্গে আপস করেছে এ বিষয়টি সেনাটি খ্রিস্টান পাড়া এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে কোন জনপ্রতিনিধি এলাকার ব্যক্তিবর্গ ব্যতীত তাদের এই সিদ্ধান্ত এবং অর্থের বিনিময় অপরাধ ঢাকা কে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।