• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০১:৩৩ পূর্বাহ্ন

কোটালীপাড়ায় শারীরিক প্রতিবন্ধীর ইজিবাইক রাতের আঁধারে পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ চিহ্নিত দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে


প্রকাশের সময় : এপ্রিল ২৮, ২০২৪, ৯:৫৫ পূর্বাহ্ন / ২৪
কোটালীপাড়ায় শারীরিক প্রতিবন্ধীর ইজিবাইক রাতের আঁধারে পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ চিহ্নিত দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোপালগঞ্জঃ ঘটনাটি ঘটেছে গোপালগঞ্জ জেলার কোটালিপাড়া উপজেলার হিরণ ইউনিয়নের দক্ষিন হিরণ শেখ বাড়ির মকবুল হোসেন শেখের বাড়িতে গত ১৪ এপ্রিল রাত আনুমানিক ৩ টার সময় এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, সাবেক সেনাবাহিনী থেকে বের করে দেওয়া সদস্য গোলাম রসুল মোল্লা ও তার সহযোগীরা। ভুক্তভোগীর বাড়িতে ঢুকে বাড়িতে থাকা ছেলে মোঃ আলিনুর ইসলামের অটো বাইক চুরি করতে না পেরে পুড়িয়ে দেয়। আলিনুরের বাড়ি থেকে এর আগেও একটি অটো বাইক ও ব্যাটারি হারানোর ঘটনা ঘটার পর তারা সতর্কতা মূলক সিসি ক্যামেরা লাগিয়েছিলৌ। সেই সিসি ক্যামেরায় স্পষ্ট দেখা যায় গোলাম রশুল মোল্লাকে।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী মোঃ আলিনুর শেখ বাদী হয়ে কোটালীপাড়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। ভুক্তভোগীর দেওয়া সিসি ক্যামেরার ফুটেজটাও থানায় দেওয়া হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে এস,আই কামরুল ও এস,আই হাসমত উল্লাহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে তদন্তের স্বার্থে আসামিকে থানায় নিয়ে শনাক্ত করা হয়। অভিযুক্ত রসুল ব্যাপারটি মিটমাট করার কথা বলে আর যোগাযোগ করেন নাই।

ভুক্তভোগীর তথ্য অনুযায়ী কোটালীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার ফিরোজ আলম ব্যাপারটি মিটমাট করে দিবেন বলে বললেও প্রায় ১৪ দিন পার হয়ে গেছে অথচ এ বিষয়ে ভুক্তভোগী কোন প্রতিকার পাননি। পরে নিরুপায় হয়ে এ ব্যাপারে সুবিচার পেতে গোপালগঞ্জ আদালতে আরো একটি মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী আলিনুর ইসলাম বলেন, আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় জীবন জীবিকার নিমিত্তে আমি ১টি ইজি বাইক ক্রয় করে নিজেই সংসার চালাইয়া আসতেছি। আমার অটো বাইক পুড়াইয়া দেবার কয়েকদিন আগে আমার বাড়ির পালিত কুকুরটিও ওরা বিষ খাইয়ে মেরে ফেলেছে।

ওরা আমার বাড়ি থেকে আগেও একটি ইজি বাইক চুরি করেছিল। অটো ও ব্যাটারি চুরি করার পর আমি বাড়িতে একটি সিসি ক্যামেরা লাগাই। গোলাম রসুল, তাহের মোল্লা, কৃষ্ণ দে একত্রিত হয়ে আবারো আমার গাড়িটি চুরি করতে এসেছিলো। গাড়িটিতে ৪টি তালা দেওয়া ছিলো বলে নিতে না পেরে পুড়িয়ে দিয়েছে। গত ১৩/০৪/২০২ইং তারিখ বিকালে অভিযুক্ত কৃষ্ণ ইজি বাইক নিয়ে আমার বাড়িতে আসে আমাকে বলে যে, আমার বাড়িতে যাওয়ার পথে স্যালো মেশিন বসানো হয়েছে, আমার বাড়িতে ঢোকার পথ বন্ধ হয়ে গেছে। তার ইজি বাইকটি আমার বাড়িতে রাখার জন্য। আমি জানাই যে আমার ইজি বাইক রাখার ঘরে কোন জায়গা নাই। তাই রাখলে বাইরে রাখতে হবে। তখন আসামীরা উক্ত ইজি বাইক আমার ইজি বাইক রাখার ঘরের পার্শ্বে তালা মেরে রেখে চলে যায়। ১৪/০৪/২০২৪ তারিখ রাত অনুমান ৩ ঘটিকার সময় আগুনের পোড়া শব্দে এবং বাহিরে আলো দেখে জেগে দেখি আমার ইজি বাইক ও ঘরে আগুন জ্বলছে এবং পাশে রাখা ইজি বাইকটিও নেই। আমার আত্মচিৎকারে লোকজন ছুটে আসে এবং আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। কোটালীপাড়া থানায় ওসি আমার ব্যাপারটি সমাধান করে দেওয়ার কথা সমাধান না করায় আমি গোপালগঞ্জ পুলিশ সুপারের নিকট ব্যাপারটি জানি, তিনি তাৎক্ষণিক ওসিকে ব্যাপারটি দেখার জন্য বলেন। তার পরেও কোনো প্রতিকার না পেয়ে গোপালগঞ্জ আদালতে একটি মামলা দায়ের করি।

এ বিষয়ে কোটালীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ফিরোজ আলম এর কাছে ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত চলছে, ঘটনার সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেব।